BREAKING NEWS

২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

মুম্বইকে চিরতরে বিদায়! জেরার পরই দিল্লি ফিরলেন সুশান্তের সহ-অভিনেত্রী সঞ্জনা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: July 2, 2020 10:12 am|    Updated: July 2, 2020 4:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টানা ৯ ঘণ্টা জেরা। তারপরই মুম্বই থেকে বিদায় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন অভিনেত্রী সঞ্জনা সাংঘি। ইনস্টাগ্রামে একথা জানিয়েছেন অভিনেত্রী। আর সেই পোস্ট ঘিরেই তৈরি হয়েছে জল্পনা। কারণ পোস্টে সঞ্জনা লিখেছেন, ‘খুব শীঘ্রই দেখা হবে। অথবা কোনওদিনই হবে না।’ এরপরই নেটদুনিয়ায় শুরু হয়েছে জল্পনা। তবে কি বরাবরের মতো মুম্বই ছাড়লেন সঞ্জনা?

সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’র নায়িকা সঞ্জনা সংঘি (Sanjana Sanghi)। অভিনতার মৃত্যুর পর, মঙ্গলবার রাতে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মুম্বই পুলিশ। টানা ৯ ঘণ্টা টলে জিজ্ঞাসাবাদ। সঞ্জনা গতবছর #MeToo অভিযোগ এনেছিলেন সুশান্তের বিরুদ্ধে। সঞ্জনা অভিযোগ তুলেছিলেন, ছবির শুটিং চলাকালীন তাঁর সঙ্গে অশালীন ব্যবহার করেছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত। অভিনেতার ‘অতিরিক্ত বন্ধুভাবাপন্ন আচারণে’ বিব্রত হয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন সঞ্জনা। কেন সঞ্জনা এই অভিযোগ এনেছিলেন এবং শেষ ছবি শুট করার সময়ে সুশান্তের মানসিক পরিস্থিতিই বা কেমন ছিল? যাবতীয় বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হয়েছে অভিনেত্রীকে। তারপরই প্রকাশ্যে আসে সঞ্জনার এই ইনস্টাগ্রাম পোস্ট।

sanjana insta

[ আরও পড়ুন: হাজার গাছ লাগাতে চেয়েছিলেন পরিবেশপ্রেমী সুশান্ত, প্রিয় অভিনেতার ইচ্ছেপূরণ করলেন ভক্ত ]

ইনস্টাগ্রাম একটি ছবি শেয়ার করেন সঞ্জনা। মুম্বই এয়ারপোর্টের তাঁর ছবি। সেখানে লেখেন, ‘খুদা হাফিজ মুম্বই। আমি দিল্লি চললাম। তোমার রাস্তাগুলো একটু অন্যরকম লাগছে। ফাঁকা ফাঁকা। হয়তো আমার মনের অবস্থা আমার দৃষ্টি বদলানোর জন্য দায়ী। অথবা তুমিও কষ্টে রয়েছ।’ এরপর থেকেই সঞ্জনার মুম্বই ছাড়া নিয়ে একের পর এক প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। মঙ্গলবার তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপর বুধবারই মুম্বই ছাড়েন তিনি। কেন? তাহলে কি জিজ্ঞাসাবাদে এমন কোনও তথ্য উঠে এসেছে যার জন্য মুম্বই ছাড়লেন সঞ্জনা? নাকি কিছুদিনের জন্য নিজের দিল্লির বাড়িতে সময় কাটাতে গেলেন তিনি? এই নিয়ে সরগরম নেটদুনিয়া। যদিও এর উত্তর এখনও দেননি সঞ্জনা।

[ আরও পড়ুন: করোনা আবহে সুখবর, অস্কারের সদস্য হওয়ার আমন্ত্রণ পেলেন হৃতিক-আলিয়া ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement