১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  দিন কয়েক আগেই শোনা গিয়েছিল ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর সেটকে প্লাস্টিকমুক্ত করেছেন বরুণ ধাওয়ান। প্লাস্টিকের গ্লাস নয়, বরং জল খাওয়ার জন্য সবাইকে প্লাস্টিক-ফ্রি সিপার দেওয়া হয়েছে। যেই কারণে অনুরাগীরা বরুণের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছিলেন। এবার প্লাস্টিকমুক্ত সেট গড়ার জন্য বরুণকে বাহবা জানালেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

[আরও পড়ুন: স্টেশন থেকে রেকর্ডিং স্টুডিও, রানুর জার্নির কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেললেন হিমেশ]

কী বললেন মোদি? “‘কুলি নম্বর ওয়ান’ টিমের প্রশংসনীয় উদ্যোগ, দেখেও ভাল লাগছে যে ভারতকে প্লাস্টিকমুক্ত করার জন্য ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিও এগিয়ে আসছে”, টুইটারে এমন বক্তব্য করেই বরুণ-সারার গোটা টিমকে শুভেচ্ছা জানান নরেন্দ্র মোদি। পরিবেশ রক্ষায় যে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর নির্মাতারা, তা বলাই বাহুল্য। উল্লেখ্য, এই প্রথম বলিউডে কোনও ছবির শ্যুটিং সেটকে সম্পূর্ণ প্লাস্টিকমুক্ত করা হয়েছে। কারণ এই ছবির সেটে যাঁরাই রাত-দিন কাজ করছেন কিংবা আসছেন, কারওরই অনুমতি নেই প্লাস্টিকের থলে কিংবা এই জাতীয় কোনও জিনিস নিয়ে প্রবেশ করার। এমনকী, ছবির তারকা থেকে প্রোডাকশনের লোকেরা সেটে সবাই পাতে পেড়ে খাওয়া-দাওয়া করছেন স্টিলের বাসনপত্রে। ছবির ক্রু সদস্যদের প্রত্যেককে দেওয়া হয়েছে প্লাস্টিক-ফ্রি সিপার। যাতে ঠাণ্ডা পানীয় কিংবা জল খেতে সুবিধে হয়। আর এহেন অভিনব উদ্যোগকে সবার সামনে তুলে ধরতে সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করেছেন তাঁরা। কারণ তাঁরা চান, তাঁদের মতোই বলিউডের আরও ৫ জন চলচ্চিত্র নির্মাতারাও যাতে নিজস্ব ছবির সেটকে ‘প্লাস্টিক-ফ্রি’ করে তোলেন। সেই বার্তা দিতেই নেটদুনিয়ার মাধ্যমে আরজি জানিয়েছেন ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর গোটা টিম।

[আরও পড়ুন: রাজ্য সরকারের প্রার্থী নিয়োগের তালিকায় সানি লিওনের নাম!]

আগামী ২ অক্টোবর অর্থাৎ গান্ধীজয়ন্তী থেকেই প্লাস্টিক বিরোধী অভিযান শুরু করার ডাক দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই ডাকে সাড়া দিয়েই মোদির প্রশংসায় কুড়লো ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর গোটা টিম। বরুণও ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। বরুণের কথায়,“বাড়িঘর পরিষ্কার রাখা তো প্রাথমিক শিক্ষার মধ্যেই পড়ে। যেভাবে আপনি স্বচ্ছ ভারত অভিযান শুরু করেছিলেন, আমার মনে হয় সবার এগিয়ে আসা উচিত। স্বচ্ছতার তালিকায় ভারতকে পয়লা নম্বরে নিয়ে আসার সংকল্প নেওয়া উচিত।”   

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং