৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সকাল দশটা। নোভোটেলের ৩০৯ নম্বর ঘর। মডেলের মেকআপ চলছে। যাঁরা জানেন না কে মডেল? হঠাৎ করে চিনতেই পারবেন না। লং স্প্যাগেটি ড্রেসে ইমন চক্রবর্তী জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত, বাংলা গানের জগতে এই মুহূর্তে সবথেকে জনপ্রিয় মহিলা শিল্পী। তাঁর সঙ্গে কথা বললেন শ্যামশ্রী সাহা

গায়িকা স্বেচ্ছায় স্পেশাল ফোটোশুটে মানে ধরেই নেওয়া যায় এটা আপনার অভিনয় জগতে পা রাখার প্রিপারেশন?

ইমন:(হাসি)। কথা তো হয়েছিল। সেটা তো জানো। তবে সেটা এখনই হচ্ছে না। হলে বলব।

[আরও পড়ুন: ‘ঝঞ্ঝাটের ভয়ে বিশ্বাস থেকে সরে যেও না’, মহিলাদের বার্তা সিন্ধুর]

এই লুকে আপনাকে দেখে তো সবাই চমকে যাবে।

ইমন:(হাসি) আমি তো সেটাই চাই। অনেকদিন থেকে এরকম কিছু একটা করব ভাবছিলাম। ‘কফিহাউস’কে আমার মনের কথাটা প্রথম বলি। আমি যখন শো করি তখন আমার পোশাক আলাদা। সেটায় আমার একটা ইমেজ তৈরি হয়ে গেছে। কিন্তু তার মানে এটা নয় যে ইমন সব সময় শাড়ি পরবে, খোঁপা করবে। সেই স্টিরিওটাইপ আমি ভাঙতে চাই। আমার মধ্যে আরও একটা সত্তা আছে। আমি সেটাকেও এক্সপ্লোর করতে চাই।

রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী ইমন চক্রবর্তী ওয়েস্টার্ন ওয়ারে। বিতর্কের ভয় নেই? শুটে আসার আগে মেন্টাল প্রিপারেশন কী ছিল?

ইমন: প্রথমে মনে হচ্ছিল আমার ফ্যানরা ব্যাপারটা কীভাবে নেবে? যখন শুট করছি তখনও মনে হচ্ছিল কেমন হবে? কিন্তু ট্রোলড হওয়াটা আমাদের, সেলিব্রিটিদের অভ্যাস হয়ে গেছে। আমরা কথা বললেও ট্রোলড হই। ওসব না ভেবে এখন আমার স্বপ্ন নিজেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে মেলে ধরা। আর ধরো যদি বিয়নসের কথা ভাবি, বিয়নসে একটা বিকিনি পরে গান গাইছে। সবাই কিন্তু ওর গান শুনছে, ও কী পরে আছে সেটা ম্যাটার করে না। শাকিরা, জে লো-কে দেখেও আমরা কেয়া বাত বলছি। কিন্তু যখন বাংলার কোনও শিল্পী একটু সাহসী পোশাক পরছে তখন কেন গেল গেল রবটা উঠবে? আমার মনে হয় এটা ভাঙা উচিত, আর এটা ভাঙতে আমাদের এগিয়ে আসা উচিত।

ইমন কি আজ বাথটবেও পোজ দেবেন?

ইমন:দিতেই পারি, তার আগে দরকার একটা বলিউড হিট। ওটা করে ফেলি তারপর।

এই মুহূর্তে আপনার জীবনে অনেকগুলো পরিবর্তন হচ্ছে। আপনি বাড়ি বদলাচ্ছেন…

ইমন:(থামিয়ে দিয়ে) হ্যাঁ অনেকগুলো পরিবর্তন আমার জীবনে হয়েছে। বাড়ির কথা তো বললে, এছাড়াও আমি রেগুলার জিম করছি। সেটা বাইরে এলেও ব্রেক হয় না। আগে যতটা রেওয়াজ করতাম এখন তার থেকে অনেক বেশি রেওয়াজ করছি। মেন্টালি ও ফিজিক্যালি ফিট থাকার চেষ্টা করছি। এখন মনে হয় আমি বড় হয়েছি। নিজেকে বুঝতে শিখেছি, ইমোশন কন্ট্রোল করতে শিখেছি।

[আরও পড়ুন: ‘কমেডিয়ান নন, ভানুদা পূর্ণাঙ্গ অভিনেতা’, স্মৃতি রোমন্থন পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের]

মডেল হিসাবে নিজেকে এস্ট্যাবলিশ করতে গেলে আপনাকে কিন্তু সাহসী হতে হবে।

ইমন: দেখো আমি যখন বেড়াতে যাই বা রিসর্টে যাই, তখন তো ওই ধরনের পোশাকই পরি। ওই পোশাকে ফোটোশুট করতে তাহলে সমস্যা হবে কেন? আমার কাছে আজকের দিনটা দারুণ মেমোরেবল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং