২৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রয়াত হলেন বলিউডের প্রখ্যাত সুরকার, ‘পদ্মভূষণ’ প্রাপ্ত মহম্মদ জাহুর খৈয়াম হাশমি। বলিউড তথা গোটা দেশ তাঁকে সুরকার ‘খৈয়াম’ নামেই চিনত। সোমবার রাত সাড়ে ৯ টা নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বয়স হয়েছিল ৯২ বছর। শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে দিন কয়েক আগে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে ভরতি হন খৈয়াম। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল তাঁর। 

[ আরও পড়ুন: ‘ওঁরা যৌন হেনস্তার শিকার’, পার্শ্বশিক্ষিকাদের পাশে থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ অপর্ণার ]

খৈয়ামের এক পারিবারিক বন্ধু জানিয়েছেন, কয়েকদিন আগে তাঁর ফুসফুসে সংক্রমণ ধরা পড়ে। ১৫ আগস্ট চিকিৎসকদের পরামর্শে সংক্রমণ নিয়ে জুহুর সুজয় হাসপাতালে তাঁকে ভরতি করা হয়। তাঁর শারীরিক পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হতে থাকায় হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল খৈয়ামের। যদিও তাঁর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক বলেই তখন জানিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। তাঁরা এও জানিয়েছিলেন, ফুসফুসের সমস্যার পাশাপাশি অন্যান্য বার্ধক্যজনিত সমস্যাও ধরা পড়েছে তাঁর। সোমবার রাতে তিনি প্রয়াত হন। আজ, মঙ্গলবার তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।

প্রসঙ্গত রবিবারই ৯২ বছরে পা দেন খৈয়াম।  জন্মদিনের পরদিনই তাঁর প্রয়াণ দুঃখজনক বলে জানিয়েছেন অনেকে। এমন এক সুরকারের মৃত্যুতে শোকে মূহ্যমান বলিউড। লতা মঙ্গেশকর-সহ একাধিক বলিউড শিল্পীরা তাঁর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন। লতা মঙ্গেশকর লিখেছেন, ‘সংগীতের একটা যুগ শেষ হয়ে গেল’। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও টুইটারে শোকবার্তা জানিয়েছেন। লিখেছেন, অনেক ভাল গান ও সুরের জন্য তাঁকে মনে রাখবে আসমুদ্রহিমাচল। তাঁর মানবিকতার জন্যও খৈয়ামকে সবাই ভালবাসত।

খুব কম বয়সই সংগীত চর্চা শুরু করেন মহম্মদ জাহুর খৈয়াম৷ বলিউডে তাঁর প্রথম কাজ ‘উমরাও জান’ ছবিতে৷ তাঁর দেওয়া সুরে মজে যায় গোটা ভারত। সেই শুরু। তারপর একের পর এক ছবিতে সুর দিয়েছিলেন তিনি৷ ‘উমরাও জান’ মুক্তির পর আজ প্রায় ৪ দশক অতিক্রান্ত। কিন্তু তাঁর সুরে আজও মজে শ্রোতারা৷‘উমরাও জান’ ছাড়া ‘কভি কভি’, ‘নুরি’, ‘রাজিয়া সুলতান’, ‘বাজার’-এর মতো ছবিতেও সুর দিয়েছেন তিনি। তাঁর কাজের জন্য সংগীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছিলেন খৈয়াম৷ পেয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কারও। ২০১০ সালে লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার পান তিনি। ঠিক তার পরের বছরই তাঁকে ‘পদ্মভূষণ’ সম্মানে সম্মানিত করা হয়।

[ আরও পড়ুন: ৩৭০ ধারার পদ্ধতি প্রয়োগ করে বিলুপ্ত হোক ইসলামিক আইনও, মন্তব্য তসলিমার ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং