BREAKING NEWS

১২  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ২৭ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

সেন্সর বোর্ডের প্রধান পদ থেকে বরখাস্ত পহেলাজ নিহালানি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 11, 2017 1:33 pm|    Updated: August 11, 2017 1:56 pm

Pahlaj Nihalani sacked as CBFC Chief, Prasoon Joshi to take over the post

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশন প্রধান পদ থেকে সরানো হল পহেলাজ নিহালানিকে। গোড়া থেকেই তাঁর নানা ধরনের কাজকর্মে তিতিবিরক্ত ছিল গোটা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। সম্প্রতি নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির ছবি ‘বাবুমশাই বন্দুরকবাজ’কে ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে ওঠে। তার জেরেই এই পদক্ষেপ তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের ভারপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির।

‘বাবুমশাই বন্দুকবাজ’-এর শরীরে পহেলাজের কাঁচি চলল ৪৮ বার ]

সেন্সর বোর্ড চলছিল তুঘলকি কানুনে। পরিচালক থেকে কলাকুশলীদের অভিযোগ ছিল এরকমই। ‘উড়তা পাঞ্জাব’ থেকে তাঁর সিদ্ধান্তে বিতর্ক তুঙ্গে ওঠে। এমনকী জল গড়ায় আদালত পর্যন্তও। তাতেও অবশ্য পহেলাজের প্রতাপ কমেনি। একের পর এক ছবিতে তাঁর কাটের সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনা হয়। তবে সহ্যের সীমা বোধহয় ছাড়ায় সম্প্রতি। নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি ও বিদিতা বাগ অভিনীত ‘বাবুমশাই বন্দুকবাজ’ ছবিকে ৪৮টি কাট দেওয়ার নির্দেশ দেন পহেলাজ। যা নিয়ে ঝড় ওঠে সিনেদুনিয়ায়। কী করে একটা ছবিকে অ্যাডাল্ট সার্টিফিকেট দেওয়ার পরও এতগুলি কাট দেওয়া হয়, তা নিয়ে অবাক হয়েছিলেন সিনেদুনিয়ার সঙ্গে যুক্ত সকলেই। এমনকী পহেলাজের বিরুদ্ধে বিশেষ এক রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিত্ব করার অভিযোগও উঠেছিল। একের পর এক ঘটনার প্রেক্ষিতেই এবার কড়া সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক।

‘দিব্যাঙ্গ’দের সঙ্গে নিয়ে জাতীয় সংগীত পরিবেশন অমিতাভের ]

বস্তুত সার্টিফিকেশন বোর্ডের ছবি সেন্সর করার যৌক্তিকতা নিয়েই বহুবার প্রশ্ন উঠেছে। একমাত্র বিশেষ কয়েকটি ক্ষেত্রে সে অধিকার দেওয়া ছিল বোর্ডকে। কিন্তু কোনও কিছুর তোয়াক্কা না করেই কাজ করছিলেন পহেলাজ। রীতিমতো হয়ে উঠেছিলেন নীতিপুলিশ। যাতে খর্ব হচ্ছিল শিল্পীর স্বাধীনতা। এমনকী শ্যাম বেনেগালের নেতৃত্বাধীন কমিটি পর্যন্ত এই ধরনের কাজের বিরোধিতা করেছিল।  কমিটির মত ছিল, আরও অনেক ক্যাটেগরি থাকতে পারে। ছবিকে বিভিন্ন ক্যাটেগরির সার্টিফিকেট দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু কখনওই শিল্পীর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ বাঞ্ছনীয় নয়। সে রিপোর্ট কেন্দ্রীয় তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রকে জমাও পড়েছিল। যদিও তা সত্ত্বেও নিজের ‘স্বৈরাচারী’ রাজত্ব চালাচ্ছিলেন পহেলাজ। কোনওমতেই তাঁর কাঁচিকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। এমনকী তাঁর জমানায় রীতিমতো হেনস্তার মুখে পড়তে হয়েছে পরিচালক, প্রযোজকদের। সম্প্রতি ‘বাবুমশাই বন্দুকবাজ’ ছবির প্রযোজক মহিলা বলে তাঁকেও হেনস্তার মুখে পড়তে হয়। এরপরই পহেলাজ সরানোর সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রক। সেন্সর বোর্ডের প্রধান করা হল গীতিকার প্রসূন জোশীকে। বোর্ডের বিশেষ পদে আসছেন অভিনেত্রী বিদ্যা বালান।

এবার স্বাধীনতা সংগ্রামী দীনেশ গুপ্তর চরিত্রে দেখা যাবে দেবকে ]

খবর পেয়ে খুশির হাওয়া সিনে পরিবারে। ‘উড়তা পাঞ্জাব’ নিয়ে সেন্সরের কোপ নাকানি চোবানি খেতে হয়েছিল পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপকে। এদিন তাঁর প্রতিক্রিয়া, “দীর্ঘদিন পর কোনও ভাল খবর শুনলাম।” ‘বাবুমশাই বন্দুকবাজ’ ছবির পরিচালক কুশন নন্দী জানালেন, “নিশ্চয়ই ভাল খবর এটা। এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানাচ্ছি। তবে শুধু পহেলাজকে বরখাস্ত করলেই হবে না। গোটা সিস্টেমের খোলনলচে বদলাতে হবে।” অন্যদিকে এ খবরে আনন্দ প্রকাশ করেছেন লেখিকা শোভা দে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে