×

৩ চৈত্র  ১৪২৫  মঙ্গলবার ১৯ মার্চ ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৩ চৈত্র  ১৪২৫  মঙ্গলবার ১৯ মার্চ ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবিটি বন্ধের নিষেধাজ্ঞায় এবার হস্তক্ষেপ করল সুপ্রিম কোর্ট। এই নিয়ে রাজ্য সরকারকে নোটিস দিয়েছে আদালত। তাতে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ছবিটির প্রদর্শন ফের শুরু করতে হবে। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, কোনও ছবি সিনেমাহলে মুক্তি পাওয়ার পর তা কোনওভাবেই বন্ধ করা যায় না। এর জন্য মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবকে এর জন্য ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। নোটিস পাঠানো হয় ডিজিপিকে। সেই সঙ্গে রাজ্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তারা ছবিটির প্রদর্শনের জন্য যেন সহায়তা করেন।

১৫ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেয়েছিল ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবিটি। কিন্তু তার পরের দিনই, ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকেই বন্ধ হয়ে যায় ছবির প্রদর্শন। কেন, কী কারণে ছবিটি বন্ধ করে দেওয়া হয়, তা নিয়ে কোনও কথা কোথাও শোনা যায়নি। শুধু নিঃশব্দে কলকাতায় বন্ধ হয়ে যায় ছবিটি। বলা হয়, উপরমহলের নির্দেশেই শহরের প্রায় সব সিঙ্গল স্ক্রিন আর মাল্টিপ্লেক্স থেকে তুলে নেওয়া হয় ‘ভবিষ্যতের ভূত’। অনুমান, ছবিটি পলিটিক্যাল স্যাটায়ার। সেই কারণেই বন্ধ করে দেওয়া হয় ছবির প্রদর্শন।

দোলের আগে নতুন ছবি, রাজনৈতিক লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিয়ে অকপট মিমি ]

কিন্তু রাজ্য সরকারের এই নির্দেশ মেনে নিতে পারেননি শিল্পীরা। ছবির প্রদর্শন ফের শুরু করার দাবিতে পথে নেমে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। প্রদর্শন বন্ধ হওয়ার পরের দিন মেট্রো চ্যানেলে প্রতিবাদে শামিল হন পরিচালক অনীক দত্ত। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ছবির অনেক কলাকুশলী। তিনি জানান, যদি তিনি ছবিটি ইউটিউব বা অন্য কোনও ডিজিটাল প্লাটফর্মে আপলোড করেন, তাহলে কীভাবে তাঁকে কেউ আটকাবে? পরিচালক সরাসরি বলেন, ছবিটি দর্শকরা দেখবে। তার জন্য প্রয়োজন হলে পাড়ায় পাড়ায় হবে স্ক্রিনিং। এরপর দিন কয়েক আগে প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয় মধুসূদন মঞ্চ থেকে। সেখানে জমায়েত হয়েছিলেন টলিউডের বহু শিল্পী। ছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেন, কল্যাণ রায়, সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়, বিকাশ ভট্টাচার্য, সমীর আইচ, সোহাগ সেনের মতো শিল্পীরা। সেখানে অপর্ণা সেন বলেন, আজ একজনের উপর যা বর্তেছে, পরে সকলের উপর তা বর্তাতে পারে। কারা, কেন ছবিটি বন্ধ করেছে তা প্রশ্ন নয়। বড় প্রশ্ন যে ছবি সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পেয়েছে তার প্রদর্শন বন্ধ করার অধিকার কারওর নেই। এতে মৌলিক সাংবিধানিক অধিকার, বাক স্বাধীনতার খর্ব করা হয়। মধুসূদন মঞ্চ থেকে মিছিল শুরু করেন শিল্পীরা। মিছিলে অনেককে ভুতের মুখোশ পরে হাঁটতে দেখা যায়।

ওয়েব আঙিনায় দুই খ্যাপাটে বন্ধু ফিরল ‘খ্যাপা সিজন ২’ নিয়ে ]

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং