BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সৌরভের বায়োপিক বানাতে চেয়েছিলেন সুশান্ত!‌ ইডি’র জেরায় জানালেন বিজনেস পার্টনার

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: September 3, 2020 10:34 pm|    Updated: September 3, 2020 10:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ যতদিন যাচ্ছে ততই সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিয়ে সামনে আসছে নানান অজানা তথ্য। বলিউড অভিনেতার মৃত্যুরহস্যের কিনারা করতে একদিকে তদন্তে নেমেছে সিবিআই। অপরদিকে, জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেটও (Enforcement Directorate)। এবার সেই ইডির জেরায় চাঞ্চল্যকর তথ্য জানালেন সুশান্তের বিজনেস পার্টনার বরুণ মাথুর। ইডির জিজ্ঞাসাবাদের সময় বরুণ মাথুর জানান, মহেন্দ্র সিং ধোনির পর আরেক প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির (Sourav Ganguly) বায়োপিক তৈরি করতে চেয়েছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত।

এদিন জেরার সময় সুশান্তের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে, মাথুর বলেন, ‘‌‘‌বেশ কিছু প্রজেক্ট নিয়ে পরিকল্পনা ছিল সুশান্তের। এর মধ্যে ইতিহাস নির্ভর বিভিন্ন ধরনের সিনেমা তৈরির পাশাপাশি প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বায়োপিকও বানাতে চেয়েছিলেন তিনি। ভার্চুয়াল জগৎ ও বাস্তবের মিশেলে আরও একটি ছবি করতেও আগ্রহী ছিলেন সুশান্ত। যেখানে তাঁর ১২টি ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করার কথা ছিল।’‌’

[আরও পড়ুন: দুই অভিনেতার দ্বৈরথ! রণবীর সিংকে ছেঁটে ‘বৈজু বাওরা’ ছবিতে রণবীর কাপুরকে নিচ্ছেন বনশালি?]

প্রসঙ্গত, বরুণ মাথুরের সঙ্গে সুশান্ত সিং রাজপুত একটি নতুন কোম্পানি শুরু করেছিলেন। কিন্তু নতুন ওই কোম্পানি শুরু করার এক বছরের মধ্যেই অর্থাৎ ২০১৯ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়। কী কারণে তা হয়, সে বিষয়ে অবশ্য কিছু জানা যায়নি।

এদিকে, সুশান্তের মৃত্যুর রহস্য কি মাদক চক্রের ঘেরাটোপেই লুকিয়ে? উত্তর খুঁজছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। সিবিআই, ইডির পাশাপাশি এবার সুশান্ত (Sushant Singh Rajput) মৃত্যু তদন্তে জোর কদমে নেমে পড়ল এনসিবি। মাদকচক্রে জড়িত থাকার অভিযোগে ইতিমধ্যেই রিয়া চক্রবর্তী এবং তাঁর ভাই সৌভিক চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তরফে। যার রেশ ধরে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩ জনকে। এবার মাদক কারবারী ফারুক বাটাটার খোঁজে এনসিবি। কিন্তু এসবের মাঝেই রিয়ার (Rhea Chakraborty) ভাই সৌভিকের এক চ্যাট জোর শোরগোল ফেলে দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে সৌভিককে মাদক কারবারীকে বলতে দেখা গিয়েছে যে, “বুম দরকার ভাই, ড্যাড-এর দরকার… ও বোঝেইনি যে ওর স্টক শেষ গয়ে গিয়েছে..!” এই কথপোকথনে ‘ড্যাড’ বলে কাকে সম্বোধন করতে চেয়েছেন সৌভিক? সেই সন্দেহে ভর করেই রহস্য দানা বাঁধছে। এবার এই মাদক কারবারীদের সঙ্গে ভাইবোনের এত ঘন ঘন কথা যোগাযোগ রাখাকেই সন্দেহের চোখে দেখছেন গোয়েন্দা আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, আগামী শনিবার ফের ইডির অফিসে হাজিরা দিতে হবে সৌভিককে। উপরন্তু নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর আতস কাচও রিয়ার ভাইয়ের উপর।

[আরও পড়ুন: ‘ড্যাড’-এর জন্য মাদক চাই! রিয়ার ভাইয়ের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ঘিরে দানা বাঁধছে রহস্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement