২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’র মঞ্চে নবরূপে অমিতাভ, প্রতিযোগীর সঙ্গে মাতলেন টিকটক ভিডিওয়

Published by: Bishakha Pal |    Posted: September 2, 2019 3:17 pm|    Updated: September 2, 2019 5:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টিকটক জ্বরে কাবু এখন আট থেকে আশি। স্কুলপড়ুয়ারা যেমন নতুন এই অ্যাপের জন্য পাগল, ঠিক তেমনই টিকটক নিয়ে মাতামাতি রয়েছে বয়স্কদেরও। তার অন্যতম উদাহরণ গ্রেটার নয়ডার দীপিকা শর্মা। এমনিতে তিনি নিতান্তই অপরিচিত। কিন্তু ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’র দৌলতে আজ তাঁকে সবাই চেনে। তবে তিনি অমিতাভ বচ্চনের সামনে ফটাফট কঠিন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বলে নয়, বচ্চন সাহেবকে দিয়ে উত্তরপ্রদেশের এই শিক্ষিকা টিকটক ভিডিও রেকর্ড করিয়েছেন।

[ আরও পড়ুন: জন্মের পর মৃত ঘোষণা করা হয়েছিল, সেই নূপুরই কেবিসি-তে জিতলেন ১২ লক্ষ ]

এমনিতে প্রতিযোগীদের সঙ্গে ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’র মঞ্চে খুব বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করেন অমিতাভ বচ্চন। সুপারস্টার ইমেজের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে খুব সাবলীলভাবেই মিশে যান প্রতিযোগীদের সঙ্গে। কথাবার্তার পাশাপাশি চলে আড্ডাও। একটি এপিসোডে প্রতিযোগী দীপিকার সঙ্গেও গল্প করছিলেন তিনি। গল্পচ্ছলেই জানতে পারেন দীপিকা টিকটক করতে ভালবাসেন। দীপিকার টিকটকপ্রীতি দেখে বেশ অবাকই হয়ে যান বিগ বি। দীপিকা এও জানান, তিনি যদি প্রতিযোগিতা জিতে যান, তাহলে অমিতাভের সঙ্গেই একটি টিকটক ভিডিও রেকর্ড করতে চান তিনি।

[ আরও পড়ুন: রুমমেটের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ, পুলিশের দারস্থ ছোটপর্দার নামী অভিনেত্রী ]

দীপিকার আশা সফল হয়। শেষ পর্যন্ত ৬ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা জেতেন তিনি। আর অমিতাভকেও রাজি হতে হয় টিকটক ভিডিও রেকর্ড করতে। তবে অমিতাভ এতে একেবারেই বিরক্ত হননি। দীপিকার সঙ্গে মহা উৎসাহে ভিডিও রেকর্ড করেন তিনি। তাঁরই বিখ্যাত ছবি ‘খুদদার’-এর বহু প্রচলিত গান ‘আংরেজি মে কহেতে হ্যায়’ টিকটকে রেকর্ড করেন তিনি। বলাই বাহুল্য এর পর আনন্দে ফেটে পড়েন দীপিকা।

যদিও দীপিকাকে নিয়ে ইতিমধ্যেই ট্রোল শুরু হয়ে গিয়েছে। অনেকে তাঁকে অলিয়া ভাটের সঙ্গে তুলনা করতেও শুরু করে দিয়েছেন। কারণ, ৩ হাজার টাকার জন্য যে প্রশ্নটি করা হয়েছিল দীপিকাকে, তিনি তার উত্তর দিতে গিয়ে ঘেমেনেয়ে একশা হলেন। পেশায় গণিতের শিক্ষিকা। কিন্তু তাঁকে যখন জিজ্ঞাসা করা হল ১০ হাজার পয়সা মানে কত টাকা? তখন সহজে তার উত্তর দিতে পারলেন না দীপিকা। এর জন্য লাইফলাইন নিলেন। আর এই নিয়েই শুরু হয়েছে সমালোচনা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement