BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

খাঁটি প্রেম, নাকি চুক্তিভিত্তিক বিয়ে? সম্পর্কের নতুন পরিভাষা শেখাবে ‘ধ্রুবতারা’

Published by: Bishakha Pal |    Posted: January 28, 2020 4:14 pm|    Updated: January 28, 2020 4:14 pm

An Images

সোমনাথ লাহা: প্রথম ভালবাসা জীবনে কেউ ভোলে না। তা সে কম বা বেশি যে সময়ের জন্যই হোক না কেন, মনে থেকে যায়। কিন্তু একজনকে ভুলে কি আরেকজনকে পুরোপুরি ভালবাসা যায়? জীবনটা যার সঙ্গে কাটানোর জন্য এগিয়ে যাওয়া সেই মানুষটির কাছে যদি পুরোপুরি ভালবাসা পাওয়া না যায়। যদি না পাওয়া যায় গ্রহণযোগ্যতা। তাহলে জীবনটা কঠিন হয়ে ওঠে।

এহেন বিষয় ভাবনাকে কেন্দ্র করেই স্টার জলসায় শুরু হতে চলেছে সম্পর্কের নতুন সমীকরণে আবর্তিত মেগাধারাবাহিক ‘ধ্রুবতারা’। অ্যাক্রোপলিস এন্টারটেনমেন্টের ব্যানারে নির্মিত এই মেগার পরিচালক সৌমেন হালদার। প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছেন স্নিগ্ধা বসু। ত্রিকোণ প্রেমের ছোঁয়ায় আবর্তিত এই মেগার কাহিনিতে ভালবাসার নতুন পরিভাষার ছোঁয়া পাবেন দর্শকরা। এমনটাই অভিমত নির্মাতাদের।

মেগা ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে রয়েছেন শ্যামৌপ্তি মুদলি, ইন্দ্রজিৎ বসু ও শুভজিৎ কর। পাঠভবনে একাদশ শ্রেণিতে হিউম্যানিটির পড়ুয়া শ্যামৌপ্তির টেলি আঙিনায় যাত্রা শুরু হয়েছিল ‘দাসী’ ধারাবাহিকের হাত ধরে। তারপর ‘রানী রাসমণি’ মেগা ধারাবাহিকেও দেখা গিয়েছিল তাঁকে। এরপর স্টার জলসার ‘বাজলো তোমার আলোর বেণু’তে মিনু চরিত্রে দর্শকদের মন ছুঁয়ে যান শ্যামৌপ্তি। এবার ‘ধ্রুবতারা’তে আরও একবার মুখ্য চরিত্র ‘তারা’র ভূমিকায় দেখা যাবে তাঁকে।

[ আরও পড়ুন: ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের মামলা থেকে সাময়িক স্বস্তি ভারতী সিংয়ের ]

অপরদিকে বাংলা টেলিভিশনের অতি পরিচিত ও জনপ্রিয় মুখ শুভজিৎ কর। পজিটিভ হোক বা নেগেটিভ সব চরিত্রেই তিনি বেশ সাবলীল। প্রয়োজনে নিজেকে ভাঙতে পারেন আর ইন্দ্রজিৎও ছোট পর্দার আরেক জনপ্রিয় অভিনেতা। ‘রাশি’, ‘আমলকী’, ‘দেবীপক্ষ’র মতো মেগায় তার অভিনয় দক্ষতায় মুগ্ধ হয়েছেন দর্শকরা।

মেগার কাহিনি আবর্তিত হয়েছে তারা (শ্যামৌপ্তি)কে ঘিরে। শান্ত, সুন্দর, স্নিগ্ধতায় পরিপূর্ণ তারা আত্মবিশ্বাসী ঝলমলে একটি মেয়ে। এহেন তারা ছোট থেকেই মানুষ হয় অগ্নির (শুভজিৎ) পরিবারের সকলকে সামলানোর পাশাপাশি তারা সবাইকে ভীষণ ভালবেসে আপন করে নেয়। এমনকী, পারিবারিক ব্যবসাও সে দেখাশোনা করে। সকলের কাছেই তার একটা নির্দিষ্ট পরিচয় রয়েছে। ছোট ছোট বাচ্চাদের কাছে এই তারাই হয়ে উঠেছে ‘পরিদিদি’। তারা ছোট থেকেই ভালবাসে অগ্নিকে। অগ্নিও তারাকে ভালবাসে। কিন্তু কেউ কাউকে মনের কথা বলে উঠতে পারেনি। এমতাবস্থায় যেদিন অগ্নি তারাকে নিজের মনের কথা খুলে বলতে যায় সেখানে হঠাৎ করেই হাজির হয় ধ্রুব (ইন্দ্রজিৎ)। অহংকারী, বিচক্ষণ বড় ব্যবসায়ী ধ্রুব দুই ছোট ছোট সন্তানের পিতা। সে বিয়ে করতে চায় তারাকে। তবে বিয়ের চুক্তিটা ব্যবসায়িক। ব্যবসা বাঁচাতে হলে বিয়ে করতে হবে বলে শর্ত রাখে ধ্রুব। এবার কি করবে তারা? সে কি নিজের ভালবাসার লোকেদের কথা ভেবে অগ্নিকে ভুলে ধ্রুবর সঙ্গে ঘর বাঁধবে? আর এর ফলে চাপা স্বভাবের জেদী মানসিকতার অগ্নিই বা কী করবে? উত্তর পেতে হলে দেখতেই হবে এই মেগাধারাবাহিকটি। মেগার চিত্রনাট্য রচয়িতা ঋষিতা ভট্টাচার্য। মেগা ধারাবাহিকটির শুটিং হয়েছে কলকাতার আশপাশের অঞ্চল ও ভি-লাইন স্টুডিওতে।

শ্যামৌপ্তির মতে, “আকাশের তারার মতো এই তারা চরিত্রটাও বেশ ঝলমলে। এই চরিত্রটা করার জন্য পুরো টিমের সাহায্য যেমন পেয়েছি, তেমনই নিজেও ভেবেছি চরিত্রটা নিয়ে। এই চরিত্রটার মধ্যে একটা বিশেষত্ব রয়েছে। সেটা জানতে হলে ধারাবাহিকটা দেখতে হবে।” শুভজিতের কথায়, “অগ্নি চরিত্রটার সঙ্গে নিজের অনেকটা মিল খুঁজে পেয়েছি। বেশ পজেটিভ, আমার মতোই চরিত্রটা। বেশ চ্যালেঞ্জিং লাগছে এই চরিত্রটায় অভিনয় করতে।” ইন্দ্রজিতের মন্তব্য, “আমি এতদিন অবধি যে ধরণের চরিত্রে অভিনয় করেছি ধ্রুবর চরিত্রটা তার থেকে বেশ আলাদা এবং কঠিন। কারণ হিরো হওয়ার পাশাপাশি সে দুটি চোট বাচ্চার বাবা। একাধারে হিরো, আবার বাবা এই কম্বিনেশনটা আমাকে ভীষণ আকর্ষণ করেছিল বলেই এই চরিত্রটা করতে রাজি হয়েছে। সেজন্য বয়সটাও একটু বাড়াতে হয়েছে।”

‘ধ্রুবতারা’ শুরু হয়েছে স্টার জলসায় সোম থেকে শুক্র রাত ৯:৩০টায়।

[ আরও পড়ুন: আত্মঘাতী জনপ্রিয় টেলি অভিনেত্রী সেজল শর্মা, মৃত্যুর কারণ নিয়ে ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement