BREAKING NEWS

১২  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ২৭ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভোরের আজানের ভিডিও পোস্ট করে দেশকে সুপ্রভাত জানালেন সোনু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 23, 2017 6:34 am|    Updated: October 7, 2019 5:42 pm

Sonu Nigam uploads the video of azan and gives proof

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোনু নিগমের ‘আজান’ নিয়ে মন্তব্য দেশ জুড়ে বিতর্কের ঝড় তুলেছে। অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে জেরবার হচ্ছেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত গায়ক। কিন্তু তাতেও নিজের অবস্থানে অনড় তিনি। রবিবার নিজেই সেই আগুনে আরও এক প্রস্থ ঘি ঢাললেন সোনু। দেশকে এক্কেবারে অন্য কায়দায় সুপ্রভাত জানালেন।

কীভাবে? কাক ভোরে নিজের অ্যাপার্টমেন্টের ছাদ থেকে আজানের ভেসে আসা শব্দ ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন তিনি। হিন্দু হওয়া সত্ত্বেও লাউডস্পিকারে আজানের শব্দেই যে তাঁর ঘুম ভাঙে, সে কথাই এবার ভিডিওর মাধ্যমে প্রমাণ করতে চাইলেন। কারও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত না করে মসজিদ বা গুরুদ্বারে লাউডস্পিকার বন্ধ করার দাবি তুলেছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর মন্তব্যে আজানের কথা উঠে আসায় তা ভালভাবে নেয়নি মুসলিম সম্প্রদায়। এমনকী, মুসলিমদের আবেগে আঘাত করার অভিযোগে গায়ক সোনু নিগমের উপর ফতোয়াও জারি করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু ইউনাইটেড কাউন্সিলের সহ-সভাপতি তথা মৌলবী সৈয়দ শাহ আতেফ আলি আল কাদরি৷ হুমকি দিয়েছিলেন, সোনুর মাথা কামিয়ে গলায় একজোড়া ফাটা জুতোর মালা পরিয়ে গোটা দেশে ঘোরাতে পারলে ১০ লক্ষ টাকা ইনাম দেবেন। ইমামের ফতোয়ার যোগ্য জবাব দেন সোনু। নিজেই সাংবাদিক বৈঠক ডেকে গত বুধবার মাথার চুল কামিয়ে ফেলেন। তারপর দাবি করেন, তাঁর ঘনিষ্ঠ আলিম ভাইকে যেন ওই ১০ লক্ষ টাকা দিয়ে দেওয়া হয়। সোনুর এই সাহসিকতার প্রশংসা করেছিলেন বলিউড অভিনেতা অনুপম খের থেকে রিচা চাড্ডা। উল্টো দিকে ওয়াজিদ খান, মিকা সিংরা এ প্রসঙ্গে সোনুর সমালোচনাই করেছিলেন।

[টানা ২৫ বছর গাছের পাতা খেয়ে সুস্থভাবে বেঁচে রয়েছেন ইনি]

এদিন সোনু নিগমের পোস্টটির পর উঠতি অভিনেত্রী শ্রদ্ধা দাস গায়কের সমালোচনা করে ফেসবুকে তাঁর মন্তব্য তুলে ধরেন। তিনি লেখেন, “আমি সোনুর অ্যাপার্টমেন্টের পাশেই থাকি। গত কয়েকদিন ধরে জানলা দিয়ে উঁকি মেরে দেখছি, সোনুর বাড়ির সামনে অনেক পুলিশ ভ্যান এবং মিডিয়ার লোকেরা ভিড় জমিয়েছেন। তাঁর মাথা কামিয়ে ফেলার কথাও শুনেছি। তারপর থেকেই এই ভিড়। বাড়ির বাইরে তাই বেশ যানজটও হচ্ছে। কিন্তু আজানের শব্দ একেবারেই কানে লাগে না। সত্যি বলতে আমি এর আগে কখনও আজানের আওয়াজ ঘর থেকে শুনতেও পাইনি।” যদিও বিতর্ক এড়াতে পোস্টটি সঙ্গে সঙ্গে নিজের ওয়াল থেকে মুছে ফেলেন তিনি।

তবে এই ভিডিও পোস্ট করে সোনু ফের ইঙ্গিত দিলেন, তিনি কোনও ফতোয়াকে ভয় পান না। ধর্মস্থানে লাউডস্পিকার ব্যবহারের বিরুদ্ধে তিনি যে রব তুলেছেন, তা অব্যাহত থাকবে।

[আদিত্যনাথের জমানায় এবার কোপ পড়ল মুলায়ম, অখিলেশদের নিরাপত্তায়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে