১৪ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৮ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১৪ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৮ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “নিজের সুখের জন্য মেয়েকেও বিক্রি করে দিতে পারেন। এত নিম্নরুচি, বেকার, ২ টাকার মহিলার সঙ্গে সময় কাটান কী করে আপনি?” সম্প্রতি নেটদুনিয়ায় কামিয়া পাঞ্জাবির দিকে এভাবেই ধেয়ে আসল ন্যাক্কারজনক মন্তব্য। টেলিভিশনের অতি জনপ্রিয় মুখ কামিয়া। তাই অভিনেত্রীর প্রতি এরকম মন্তব্যের পর অনেকেই হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলেন।

কেন একরম মন্তব্য ধেয়ে এল কামিয়ার দিকে? ঠিক কী হয়েছিল? ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর হিন্দি টেলিজগতের অনেকেই সেই প্রশ্ন ছুঁড়েছেন। অন্যদিকে, কামিয়ার সতীর্থরাও তীব্র প্রতিবাদ করেছেন তাঁর প্রতি এহেন আক্রমণ হানায়। ঘটনার সূত্রপাত কামিয়ার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ বন্ধু সালাভ সিংয়ের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট থেকে। নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতেই বন্ধু সলভের সঙ্গে ছবি শেয়ার করেন ছোটপর্দায় এই অভিনেত্রী।

[আরও পড়ুন: ফের অনুরাগীকে অবজ্ঞা, সেলফির আবদারে কর্ণপাতই করলেন না রানু ]

ছবিতে দেখা গিয়েছে সালাভের কাঁধে মাথা রেখে ছবি তুলেছেন কামিয়া। আর কামিয়া এবং সালাভের ওই ছবি দেখার পরই অভিনেত্রীকে একের পর এক কটাক্ষ করতে শুরু করেন এক ব্যক্তি। এমনকী, তাঁকে বেকার, নিচু মানের মহিলা বলেও কটাক্ষ করেন। বলেন, নিজের সুখের জন্য তিনি নাকি পেটের মেয়েকেও বিক্রি করে দিতে পারেন। আর ঠিক এই মন্তব্যটি দেখেই বেজায় চটে যান কামিয়ার বন্ধু সালাভ। তিনিও পালটা একহাত নেন কামিয়ার আক্রমণকারীকে। যথাযথ উত্তর দিয়ে, তাঁকেই পালটা কটাক্ষ করেন সালাভ।

বান্ধবীকে কদর্য ভাষায় আক্রমণের পরই তাঁর হয়ে মাঠে নেমে বন্ধু সালাভ লেখেন, “আপনাকে এত বড় সাহস কে দিয়েছে, একজন মহিলাকে এভাবে অপমান করার? শুধু তাই নয়, এসব নোংরামির মধ্যে একজন শিশুকে কেন টেনে আনছেন কেন?” বলে ট্রোলারকে পালটা কটাক্ষ করেন সলভ। পাশাপাশি ওই ব্যক্তির মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন সলভ। এমনকী ওই ব্যক্তির মন্তব্যের স্ক্রিনশট নিয়ে কামিয়াও নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন। পাশাপাশি তিনি বলেন, ছোটবেলায় এই ব্যক্তির মা-ও বোধহয় তাঁকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন। সেই কারণেই হীনমন্যতায় ভুগে নিজের যাবতীয় রাগ এভাবে উগরে দিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: চুল নিয়ে চুলোচুলির মন ভাল করা গল্প ‘টেকো’ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং