BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বিদেশে আলু রপ্তানির প্রস্তুতি, মুনাফা বাড়াতে উদ্যোগ কৃষিদপ্তরের

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 31, 2019 4:13 pm|    Updated: August 31, 2019 4:13 pm

An Images

টিটুন মল্লিক, বাঁকুড়া: বিদেশে রপ্তানির জন্য গতবছর থেকেই আলু চাষ হচ্ছে বাঁকুড়ায়। চলতি বছরেও বিদেশে রপ্তানির জন্য কুপরি হিমালিনি এবং কুপরি জ্যোতি প্রজাতির আলু চাষ করা হবে। তবে গত বছরের তুলনায় এই আলু চাষের পরিমাণ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে, গত বছর এজেলায় ১৩০ হেক্টর জমিতে বিদেশে রপ্তানির জন্য বিশেষ প্রক্রিয়ায় আলু চাষ করা হলেও চলতি বছরে তা কমিয়ে ৬৫ হেক্টর জমি করা হয়েছে। বিদেশে রপ্তানির জন্য আলুর গুণমান ঠিক রাখতে বিশেষ পদ্ধতিতে গত ২০১৮ সাল থেকে আলু চাষ চলছে এজেলায়। সে বছরই জ্যোতি, পোখরাজ, আর চিপনোনা-১, ২ প্রজাতির আলুর চাষ হয়েছিল এই জেলায়। এর ফলে এই সমস্ত এলাকায় বেকার যুবকদের কাছে নতুন এক আয়ের পথ খুলে যাবে।

[আরও পড়ুন: জঙ্গলমহলের সমবায়ের উদ্যোগ, ‘মানভূম ঘি’র সুবাস ছড়াচ্ছে বাংলায়]

জানা গিয়েছে, ধসা রোগে আক্রান্ত এবং ব্যাকটেরিয়া আক্রান্তের হাত থেকে বাঁচিয়ে গুণগত মাণ ঠিক রেখে আলু চাষ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, গত বছর আলু চাষের মরশুম শুরু হওয়ার সময় ক্ষতিকারক কৃমি বা নেমাটোড নিয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছিল। ভারতের কৃষি ও কৃষি কল্যাণ দপ্তর জানিয়ে দিয়েছিল, এদেশে তামিলনাড়ু, উত্তরাখণ্ড, হিমাচল প্রদেশ এবং জম্বু ও কাশ্মীর থেকে আসা আলুর বীজ নেমাটোড বহন করে নিয়ে এসেছিল। যা ফসলের সুরক্ষা ও ফলনের মান এবং পরিমাণের ক্ষেত্রে ভয়াবহ।

রাজ্যে আলু উৎপাদনে জেলার মধ্যে অন্যতম বাঁকুড়া জেলা। এজেলার বিষ্ণুপুর এবং খাতড়া মহকুমায় শীতকালীন অর্থনীতি অনেকটাই নির্ভর করে আলু চাষের উপরে। কৃষি দপ্তরের হিসেব বলছে এজেলার জয়পুর, কোতুলপুর, ইন্দাস, পাত্রসায়র এবং খাতড়া মহকুমার রায়পুর, রানিবাঁধ, সারেঙ্গা-সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় আলু চাষ হয়। জেলার উপকৃষি অধিকর্তা সুশান্ত মহাপাত্র জানাচ্ছেন, বিদেশে রপ্তানির জন্য চলতি বছরে কোতুলপুরের দেশড়া, বিষ্ণুপুরের জিয়াবাঁদি, চক পারশোল, সিমলাপালের ধবনী, কল্লাজ, কুমাডোবা, তালডাংরার মান্ডি, ডোমাকোলা, সাতমৌলী, ভান্ডারকি, সাবড়াকোন, চকমাজুলিয়া, রায়পুরের সিমলি, দরপাড়া, চাঁদপাড়া ,করগালি, জয়পুরের আশুরআলি, ময়নাপুর, খানাবাড়ি মৌজাগুলিকে চিহ্নিত করা হয়েছে রাজ্যের কৃষি দপ্তরের তরফে।

[আরও পড়ুন: প্রিয় পদ অমিল পাতে, দাম নিয়ন্ত্রণে রাজ্যেই পোস্ত চাষের ভাবনা সরকারের]

গত কয়েক বছর ধরে কখনও ভাল ফলনের কারণে তো কখনও আবার খারাপ ফলনের কারণে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে এজেলার আলু চাষিদের। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে আলু চাষ করে ক্ষতির মুখে পড়ছেন এজেলার কৃষকরা। ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে রাজ্য সরকার এজেলার আলু বিদেশে রপ্তানির উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু গুণগত মানের কারণে অতীতে একাধিকবার সফল হয়নি। সেই কারণেই এবার রপ্তানির জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নতুন এই উদ্যোগ কতটা সফল হয় এখন সেটাই দেখার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement