BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কীভাবে কেন্দ্র-রাজ্যের প্রকল্পের সুবিধা পাবেন কৃষকরা? জেনে নিন আবেদনের পদ্ধতি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 23, 2021 4:37 pm|    Updated: June 23, 2021 4:37 pm

Here is how the farmers will benefit from Centre, State schemes

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের সহায়তা দিয়ে থাকে। সেই প্রকল্পের সুবিধা পেতে কোথায় আবেদন করতে হবে, কী কী নথিপত্র লাগবে, কতটা সহায়তা মিলবে,  বিস্তারিত জানুন সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালে

  1. কিষান সম্মাননিধি

কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্প ২০২১ সালে বাংলায় চালু হয়েছে। এই প্রকল্পে একজন কৃষক জমির পরচা থাকলেই বৎসরে ৩টি ধাপে ২০০০ টাকা করে মোট ৬০০০ টাকা পাবেন। ১ শতক বা তার বেশি জমি থাকলেই মিলবে এই প্রকল্পের সুবিধা। তবে পরিবারের একজন মাত্র আবেদন করতে পারবেন।

  • MLA, MP, চেয়ারম্যান, সভাপতিরা আবেদন করতে পারবেন না।
  • সরকারি চাকুরি করলে আবেদন করতে পারবেন না।
  • পেনশন ১০০০০ টাকার উপরে পেলে আবেদন করতে পারবেন না।
  • জমির দলিল বা ওয়ারিশন সূত্রের প্রাপ্ত জমি দেখিয়ে আবেদন করতে পারবেন না।

আবেদনের পদ্ধতি- PMkishan.gov.in-এ গিয়ে online দরখাস্ত করতে হবে। পরে Online-এ প্রাপ্ত কাগজের সঙ্গে ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, জমির পাট্টা ও ব‌্যাংক অ‌্যাকাউন্টের ডিটেল ব্লক কৃষি দপ্তরে জমা দিতে হবে। সহকৃষি অধিকর্তা সব দেখে অ্যাপ্রুভ করলেই মিলবে কিষাণ সম্মাননিধি প্রকল্পের টাকা।

[আরও পড়ুন: কৃষকদের স্বস্তি, খারিফ শস্যের ন্যূনতম সহায়ক মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের]

2.আতমা (ATMA)

এই প্রকল্প ব্লক স্তরে কৃষিদপ্তর, উদ‌্যানপালন, প্রাণীসম্পদ, মৎস‌্য, রেশম ও কৃষি বিপণন দপ্তর একসঙ্গে কাজ করে। এ ক্ষেত্রে কৃষকদের প্রশিক্ষণ, প্রদর্শনী ক্ষেত্র, ফার্ম স্কুল, শিক্ষামূলক ভ্রমণ (জেলার ভেতর ও বাইরে) করানো হয়। ফার্মার Interest Group তৈরি করে তাঁদের Capacity Build up করা ও Seed money দেওয়া হয়। যাতে গোষ্ঠীগুলি অর্থনৈতিকভাবে সক্ষম হয়।

আতমা (ATMA) প্রকল্পে রাজ্য, জেলা ও ব্লকস্তরের কমিটি থাকে। ব্লক থেকে Block Action Plan জেলায় যায়, জেলায় GB meeting করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তারপর তা রাজ্যস্তরে পৌঁছয়। এরপর তা কেন্দ্রে পাঠানো হয়। এই প্রকল্পে কেন্দ্র অনুমোদন দেওয়ার পর কাজ শুরু হয়। এই প্রকল্পের কাজ স্পষ্টভাবে করার জন‌্য ৩ জন ATM (Aassistant Technology Manager) ও ১ জন BTM (Block Technology Manager) ব্লক কৃষি দপ্তরে নিয়োগ করা হয়।

3.State Disaster Response Fund (রাজ‌্য দুর্যোগ মোকাবিলা ফান্ড)

এই স্কিমেও চাষিদের আর্থিক সাহায্য করা হয়। বন‌্যা, খরা, শিলাবৃষ্টি ইত‌্যাদির ফলে চাষের উপকরণ কেনার জন‌্য ১০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২৭৫০০ টাকা দেয়। কোনও প্রাকৃতিক দূর্যোগ ঘটে গেলে ব্লকের-সহ কৃষি অধিকর্তা মৌজা ভিত্তিক মূল‌্যায়ন করে। কোনও মৌজার ৩৩% এর বেশি এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেই মৌজাগুলি চিহ্নিত করে জেলায় পাঠায়। জেলা থেকে জেলাশাসক দ্বারা ওই মৌজাগুলিকে Notification করা হয়। যে মৌজাগুলি Notify হয়, সেখানকার কৃষকরা সরকারি সাহায‌্য পাবে। খরিফ শষ্যে শতকে ২৭ টাকা, রবি শষ্যে শতকে ৫৪ টাকা দেওয়া হয়। তবে রাজ‌্য সরকার অনেক সময় খরিফ শষ্যে শতকে ৫৪ টাকা
করে দেয়।

আবেদন করার পদ্ধতি- মুদ্রিত দরখাস্ত ফর্ম, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, চালু ব‌্যাংক অ‌্যাকাউন্ট (রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব‌্যাংক), সাম্প্রতিক কম্পিউটারাইজড পরচা-সহ দরখাস্তটি সহ-কৃষি অধিকর্তার দপ্তরে বা Camp-এ জমা দিতে হয়। Verify হওয়ার পর মেলে অর্থ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

×