৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: স্বদেশের কচু পাড়ি দিল বিদেশে। দিনকয়েক আগে বীরভূমের নলহাটি কিষাণ মান্ডি থেকে একটি ভ্যানে ১১টন কচু বিদেশের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে। কৃষিমন্ত্রীর জেলা থেকে এমন বিদেশ যাত্রায় আনন্দিত কৃষক-সহ স্থানীয়রা৷

[আরও পড়ুন: মাটির পরিবর্তে প্লাস্টিকের ট্রে-তে তৈরি হচ্ছে ধানের চারা, বর্ধমানে কৃষি বিপ্লব]

দিনকয়েক আগে রামপুরহাটে সুফল বাংলার একটি বাজারের উদ্বোধন করেন সমবায় বিপণন মন্ত্রী। তিনি তখনই জানিয়েছিলেন বীরভূমের কচু যাবে লন্ডনে। সেই মতো নলহাটি থেকে ১১ টন কচু পাঠানো হল টেমসের তীরে৷ প্রথমে নলহাটির কিষাণ মান্ডি থেকে কচু আসে কলকাতায়। নলহাটির পাইকপাড়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গির খান, ঝাম্পু সরকার ও পান্না শেখের কাছ থেকে ওই কচু সরকারিভাবে কিনে নেওয়া হয়। রবিবার ভোরের দিকে সেই কচু কলকাতার গাইঘাটা পৌঁছয়। সেখানে ঝাড়াই বাছাই করে তা প্যাকেটজাত করা হয়। তারপরেই সেই কচু পাড়ি দেয় বিদেশে৷’’

[আরও পড়ুন: পাট চাষে হতে পারে বিপুল লক্ষ্মীলাভ, জেনে নিন পদ্ধতি]

কৃষক জাহাঙ্গির শেখ বলেন, “খুব ভাল লাগছে আমাদের জমির কচু যাচ্ছে বিদেশে। যদি চাহিদা থাকে আমরা আরও বেশি করে চাষ করব৷” তবে স্থানীয় বাজারের থেকে বিদেশের বাজারে কচুর দাম কম হওয়ায় হতাশ কৃষকরা। নলহাটি পুরসভার কাউন্সিলর পিন্টু সিং বলেন, “আমাদের এলাকা থেকে কচু বিদেশে যাচ্ছে এটাই গর্বের বিষয়। এজন্য সরকাকে ধন্যবাদ জানাই৷” নলহাটি ১ নম্বর ব্লকের বিডিও জগদীশ চন্দ্র বারুই বলেন, “এই কচু এজেন্সির মাধ্যমে বিদেশে রপ্তানি হবে। কচু কলকাতা হয়ে গাইঘাটা যায়। সেখানে প্রসেসিং হয়। এরপর দত্তপুকুর থেকে সল্টলেক হয়ে এজেন্সির মাধ্যমে ব্রিটেন, ইতালি ও জার্মানি যাবে। তবে এখন কৃষকরা কিছুটা দাম কম পাচ্ছেন। আশা করি চাহিদা বাড়লে দামও বাড়বে৷” রামপুরহাট মহকুমা কৃষি আধিকারিক জগন্নাথ অধিকারীর গলাতেও আনন্দের সুর৷ তিনি বলেন, “এটা প্রথম পর্যায়ে পাঠানো হল। এবার দেখতে হবে সেখানে কেমন চাহিদা। সেই মতো ফের পাঠানো হবে৷”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং