৪ আষাঢ়  ১৪২৬  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৪ আষাঢ়  ১৪২৬  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

বাবুল হক, মালদহ:  জুনেই বিদেশে পাড়ি দেবে মালদহের আম। বিদেশ থেকে বরাত এসেছে। ভোটের মরশুমেও তাই তৎপর উদ্যান পালন দপ্তর। এবার মালদহের আম যাবে ইংল্যান্ড, দুবাই, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, ইটালি এবং ফ্রান্সে। ইতিমধ্যেই, দিল্লি ও কলকাতা-সহ রাজ্যের বেশ কয়েকটি রপ্তানিকারক সংস্থা মালদহ ও মুর্শিদাবাদের আম বিদেশে রপ্তানির উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা উদ্যান পালন দপ্তরের উপ-অধিকর্তা রাহুল চক্রবর্তী। তিনি বলেন, “বিদেশে আম রপ্তানির ক্ষেত্রে তাদের সবরকম সাহায্য রাজ্য সরকারের তরফে করা হবে। এবার অনেক আগে থেকেই সরকার এই উদ্যোগ নিয়েছে। বেসরকারি রপ্তানিকারক সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই একটি বৈঠক হয়েছে। আমের বিদেশযাত্রার বিষয়ে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে সবুজ সংকেত মিলেছে।”

[আরও পড়ুন: বাজারে যাওয়ার বদলে বাড়িতেই করুন ক্যাপসিকাম চাষ, জেনে নিন পদ্ধতি]

জেলা উদ্যান পালন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এই বছর মালদহের আমবাগান থেকে আম তোলা শুরু হতে আরও প্রায় কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। সাম্প্রতিক কালবৈশাখী ও শিলাবৃষ্টির দাপটে মালদহের আমের কিছুটা ক্ষতি হলেও ফলন নিয়ে এখনও তেমন সংশয় নেই। জেলা উদ্যান পালন দপ্তর জানাচ্ছে, এই বছরটা আমের অন ইয়ার। অর্থাৎ ভাল ফলনের বছর। এবার মালদহ জেলায় আমের ফলন বিপুল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অন্তত সাড়ে তিন লক্ষ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হতে পারে বলে মনে করছে মালদহের আম উন্নয়ন বিভাগ।

গত বছর মালদহ থেকে কিছু আম দুবাই ও সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়েছিল। অতুলনীয় স্বাদ ও গন্ধের জন্য মালদহ ও মুর্শিদাবাদের আমের জগৎজোড়া খ্যাতি রয়েছে। এই আমকে বিশ্ববাজারে পৌঁছে দিতে পারলে কৃষকরা আর্থিকভাবে আরও বেশি লাভবান হতে পারবেন। সেই লক্ষ্যেই বিদেশের বাজারে আম রপ্তানির জন্য দপ্তরকে বারবার নির্দেশ দিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার দুবাই, সিঙ্গাপুর, ইংল্যান্ড, ইটালি এবং ফ্রান্সে আম পাঠানোর জন্য জোরকদমে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বলে জেলা উদ্যান পালন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: গ্রীষ্মের প্রখর তাপে লক্ষ্মীলাভের উৎস এই সবজিগুলি]

মালদহ জেলা আম উন্নয়ন দপ্তরের আধিকারিক রাহুল বলেন, “আমের ফলন বাড়ানোর জন্য কৃষকরা এবার কোনওরকম রাসায়নিক ব্যবহার করেননি। ফলে বিদেশে রপ্তানির ক্ষেত্রে কোনও সমস্যা থাকছে না। মালদহে প্যাকেজিংয়েরও ব্যবস্থা রয়েছে। এয়ারকন্ডিশন কন্টেনারের মাধ্যমে বিমানবন্দর অবধি পৌঁছে দেওয়া হবে। এছাড়া অন্যান্য সুবিধাও সরকারিভাবে প্রদান করা হবে।” মালদহ মার্চেন্ট চেম্বার অফ কমার্সের প্রাক্তন সম্পাদক উজ্জ্বল সাহা বলেন, “জেলার আমকে বিশ্ববাজারে পৌঁছে দিতে স্থানীয় ব্যবসায়ীরাও এগিয়ে এসেছেন। আশা করি আগামী জুন মাসেই মালদহের বিভিন্ন প্রজাতির আমের বিদেশযাত্রা শুরু হয়ে যাবে। এতে চাষিরা উপকৃত হবেন।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং