BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌জমি নিয়ে বিবাদ, উত্তরপ্রদেশে পঞ্চায়েতের সালিশি সভায় বাবা–ছেলেকে পিটিয়ে খুন

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 16, 2020 6:16 pm|    Updated: August 16, 2020 6:16 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ ফের বিতর্কে উত্তরপ্রদেশ (Uttar Pradesh) পুলিশ। সামান্য জমি নিয়ে বিবাদের জেরে যোগীর রাজ্যে পঞ্চায়েতের সভা চলাকালীন পিটিয়ে খুন করা হল বাবা এবং ছেলেকে। মৃতদের নাম দয়াশংকর মিশ্র এবং আনন্দ মিশ্র। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যে ঘটনায় জড়িত থাকায় দু’‌জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাশাপাশি কর্তব্যে গাফিলতির জন্য তিনজন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ডও করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিহারে ভোটের আগে ফের শিবির বদল পাসওয়ানের? এনডিএ শিবিরে অশান্তি চরমে]

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড় জেলার রানিগঞ্জ থানা এলাকার শেখপুর গ্রামের ঘটনা। বেশ কিছুদিন ধরে দয়াশংকর মিশ্র এবং চন্দ্রমণি মিশ্র নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে জমি নিয়ে বিবাদ চলছিল। আর সেই নিয়েই পঞ্চায়েতের সভা ডাকা হয়েছিল। কিন্তু আচমকাই দু’‌পক্ষের মধ্যে মারামারি বেধে যায়। বাঁশ–লাঠি নিয়ে মারপিট শুরু হয়। ঘটনায় দয়াশংকর মিশ্র এবং তাঁর ছেলে আনন্দ মিশ্র মারা যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় চন্দ্রমণি মিশ্রকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। এছাড়া দু’‌পক্ষের আরও অনেকে আহত হয়েছেন। ইতিমধ্যে খুনের ঘটনায় চন্দ্রমণির ছেলে রাজেশ মিশ্র এবং তাঁর ছেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন, শীঘ্রই সুস্থ হয়ে ফিরবেন বাবা’, জানালেন প্রণবপুত্র]

কিন্তু এভাবে পঞ্চায়েতের সভায় ভরদুপুরে মারপিট হল‌ অথচ পুলিশ কেন কিছু করল না?‌ এই প্রশ্নের উত্তরে পুলিশের উচ্চপদস্থ এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পুলিশকে না জানিয়েই ওই সভার আয়োজন করা হয়েছিল। তাতে মধ্যস্থতা করছিলেন দু’জন আইনজীবী। কিন্তু আচমকাই মারপিট শুরু হয়ে যায়। এরপর ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্তও শুরু হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে দু’‌জনকে। পাশাপাশি কর্তব্যে গাফিলতির জন্য এক সাব ইন্সপেক্টর–সহ তিনজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এদিকে, এই ঘটনার পর গোটা এলাকার পরিবেশ থমথমে। কান্নার রোল মৃতের পরিবারে। একটি ভিডিওতে দেখাও যাচ্ছে, স্বামী এবং সন্তানের  মৃত্যুতে দয়াশংকরের স্ত্রী হাসপাতালের মধ্যেই কান্নায় ভেঙে পড়েছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement