Advertisement
Advertisement
2024 Lok Sabha Election

নির্বাচনী বিজ্ঞাপন মামলা: ‘সুপ্রিম’ তোপের মুখে বিজেপি, কী বললেন বিচারপতিরা?

এর আগে কলকাতা হাই কোর্টেও এই বিজ্ঞাপন মামলায় ধাক্কা খেতে হয়েছিল বিজেপিকে। আজ সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে তৃণমূলের দাবি, এটাই বাংলা এবং মা-মাটি-মানুষের নৈতিক জয়।

2024 Lok Sabha Election: BJP is demeaning TMC through ad, Supreme Court slams
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:May 27, 2024 12:14 pm
  • Updated:May 27, 2024 3:40 pm

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: নির্বাচনী বিজ্ঞাপন মামলায় শীর্ষ আদালতে ভর্ৎসনার মুখে বিজেপি। তৃণমূলের বিরুদ্ধে আপত্তিকর শব্দ প্রয়োগ করে বিজ্ঞাপন দেওয়ার অভিযোগ তুলে আইনের দ্বারস্থ হয়েছিল রাজ্যের শাসক শিবির। তা নিয়ে কলকাতা হাই কোর্টে ধাক্কা খেতে হয় বিজেপিকে। হাই কোর্ট স্পষ্ট নির্দেশ দেয়, বিজ্ঞাপনগুলির কোনও বিশ্বাসযোগ্যতা নেই। তা আর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করা যাবে না। এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করে গেরুয়া শিবির। সোমবার সুপ্রিম কোর্টের অবসরকালীন বেঞ্চে মামলাটি শুনানির জন্য উঠলে বিচারপতিরা তা শুনতেই রাজি হলেন না। বিজেপির উদ্দেশে তাঁদের মন্তব্য, ”এসব বিজ্ঞাপন অন্যকে খাটো করে দেখানো, এতে আপনাদেরই শুধু লাভ হয়।”

লোকসভা নির্বাচনের (2024 Lok Sabha Election) মাঝে বাংলার শাসকদলের বিরুদ্ধে বেশ কিছু বিজ্ঞাপন দেয় গেরুয়া শিবির। তাতে তৃণমূলের উদ্দেশে এমন কিছু শব্দ প্রয়োগ করা হয়, যা আইনের চোখে Unverified. এনিয়ে তৃণমূল (TMC) হাই কোর্টে মামলা দায়ের করে। গত ২০ মে বিজেপির নির্বাচনী বিজ্ঞাপনের উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিয়েছিল কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta High Court) বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের সিঙ্গল বেঞ্চ। সিঙ্গল বেঞ্চ জানিয়েছিল, বিতর্কিত বিজ্ঞাপন আর কোনও সংবাদমাধ্যমে দেওয়া যাবে না। সেই রায়ের পালটা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করে বিজেপি। কিন্তু ডিভিশন বেঞ্চও সিঙ্গল বেঞ্চের রায়ে স্থগিতাদেশ দেয়নি। উলটে প্রধান বিচারপতি টিএস শিবজ্ঞানম মামলাকারীকেই ভর্ৎসনা করেন। তাঁর কড়া মন্তব্য, যে কোনও বিজ্ঞাপনের একটা লক্ষ্মণরেখা থাকা উচিত। এর পর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় বিজেপি (BJP)।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘কোমর বেঁধে ঝগড়া করতে হবে’, মিমির প্রশংসা করেও সায়নীকে বললেন মমতা]

সোমবার শীর্ষ আদালতের (Supreme Court) অবসরকালীন বেঞ্চে বিচারপতি জেকে মাহেশ্বরী ও কেভি বিশ্বনাথনের সামনে মামলাটি শুনানির জন্য ওঠে। কিন্তু এনিয়ে বিজেপি বনাম তৃণমূলের মামলায় হস্তক্ষেপ করতে চাইল না সুপ্রিম কোর্ট। এদিন বিজেপির তরফে আইনজীবী পিএস পাটওয়ালিয়া সওয়াল করে বলেন যে বিজ্ঞাপনগুলির বাস্তব ভিত্তি রয়েছে, কিন্তু হাই কোর্ট তা শুনতে নারাজ। এর পর বিচারপতিদের পরামর্শ, এনিয়ে বক্তব্য থাকলে হাইকোর্টে যেতে হবে। তাঁদের আরও বক্তব্য, প্রাথমিকভাবে দেখা যাচ্ছে বিজ্ঞাপনগুলিতে (Advertisement) অপরকে আক্রমণ করা রয়েছে। নিজের প্রচার করা যায়, কিন্তু অপরকে আক্রমণ করে নয়।

Advertisement

[আরও পড়ুন: অঝোর বৃষ্টি, সঙ্গে তীব্র ঝোড়ো হাওয়ার দাপট, দিনভর কেমন থাকবে আবহাওয়া?]

সুপ্রিম কোর্টের এই পর্যবেক্ষণ নিয়ে তৃণমূলের দাবি, এটাই বাংলা এবং মা-মাটি-মানুষের নৈতিক জয়। সোশাল মিডিয়ায় এনিয়ে পোস্ট করা হয়েছে। 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ