১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দেশে প্রথম, গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান হচ্ছেন মধ্যপ্রদেশের মূক ও বধির যুবক

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: February 10, 2020 4:10 pm|    Updated: February 10, 2020 4:14 pm

27-year-old man from MP set to become India’s first deaf sarpanch

ছবিটি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রত্যাশা ছিলই। শেষ পর্যন্ত তা সত্যি করে দেশের মধ্যে প্রথম কোনও গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান নির্বাচিত হতে চলেছেন এক মূক ও বধির যুবক। ইতিহাস সৃষ্টিকারী এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের দানসারি (Dansari) গ্রামে। ২৭ বছরের ওই যুবকের নাম লালু বলে জানিয়েছেন স্থানীয় এক সমাজকর্মী জ্ঞানেন্দ্র পুরোহিত।

deaf and mute sarpanch

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর শহর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ছোট্ট একটি গ্রামের নাম দানসারি। হাজার বাসিন্দার ওই গ্রামটিকে কিছুদিন আগেই গ্রাম পঞ্চায়েতের মর্যাদা দেওয়া হয় প্রশাসনের তরফে। এরপরই প্রধান পদটিকে তপশিলি উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত করে নির্বাচন করা হবে বলে ঘোষণা করা হয়। আর তারপরই ছোটবেলায় বাবা-মা হারানো ২৭ বছরের যুবক লালুকে প্রধান পদে মনোনীত করে নির্বাচনে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নেন গ্রামবাসীরা। এখনও পর্যন্ত নির্বাচনের দিন ঘোষণা না হলেও লালুর প্রধান হওয়া নিয়ে কারও মনে সন্দেহ নেই বলে দাবি করছেন দানসারি গ্রামের বাসিন্দারা। কারণ, ওই এলাকায় তপশিলি ভোটার বলতে একমাত্র লালুই রয়েছেন। তাই তাঁকে ছাড়া অন্য কাউকে প্রধান নির্বাচিত করার কোনও প্রশ্নই নেই।

[আরও পড়ুন: ভ্যালেন্টাইনস ডে-তে প্রেম নয়, পুজো করতে হবে বাবা-মাকে! ফতোয়া সুরাটে]

 

এপ্রসঙ্গে দানসারি গ্রামের এক বাসিন্দা জানান, আজ থেকে ২০ বছর আগে বাবা ও মাকে হারিয়েছিল জন্ম থেকেই মূক এবং বধির লালু। তারপর থেকে গ্রামেরই একটি পরিবারের আশ্রয় মানুষ হয় সে। আর একটু বড় হওয়ার পর থেকেই চাষের কাজ করে জীবন নির্বাহ করত। সম্প্রতি দানসারিকে গ্রাম পঞ্চায়েত হিসেবে ঘোষণা করা হয়। প্রশাসনের তরফে জানানো হয়ে খুব তাড়াতাড়ি নির্বাচনের মাধ্যমে এই গ্রামের প্রধান নির্বাচন করা হবে। প্রধানের পদ তফশিলি উপজাতির জন্য সংরক্ষিত করা হচ্ছে বলেও জানানো হয়। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর সবাই লালুকেই প্রধান পদে বসাবে বলে সিদ্ধান্ত নেন।

[আরও পড়ুন: এবার মোদি-শাহদের ‘অস্কার’ দিল কংগ্রেস! কে কোন বিভাগে পুরস্কার পেলেন?]

 

স্থানীয় সমাজকর্মী জ্ঞানেন্দ্র পুরোহিত বলেন, ‘প্রধান হয়ে গ্রামের সমস্ত মানুষ ও কৃষকদের কল্যাণে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লালু। ওর সঙ্গে সাইন ল্যাঙ্গুয়েজে কথা বলে যা বুঝেছি, তাতে বিষয়টি নিয়ে ও খুবই উৎসাহী। আশা করছি ও প্রধান পদে বসার পর এখানকার মানুষের জীবনে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগবে। দেশের মধ্যে নতুন এক ইতিহাসও তৈরি হবে। অন্য মূক ও বধির মানুষদের কাছে একটি বার্তাও পৌঁছবে।’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে