Advertisement
Advertisement
Chhattisgarh

ছত্তিশগড় জঙ্গলে লাগাতার এনকাউন্টার, দুটি আলাদা অভিযানে খতম ৩ মাওবাদী

অভিযানে উদ্ধার বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক।

3 Maoists killed in 2 encounters in Chhattisgarh

প্রতীকী ছবি

Published by: Kishore Ghosh
  • Posted:May 25, 2024 10:21 pm
  • Updated:May 25, 2024 10:23 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত বৃহস্পতিবার ছত্তিশগড়ে (Chhattisgarh) নারায়ণপুর ও বিজাপুর জেলার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে ৭ মাওবাদীকে খতম করেছিল নিরাপত্তা বাহিনী। শনিবার আলাদা দুটি অভিযানে সুকমা ও বিজাপুর জেলায় ৩ মাওবাদীকে খতম করল নিরাপত্তারক্ষীরা। অভিযানে বেশ কিছু আগ্নেয়াস্ত্র এবং বিস্ফোরক উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃত তিন মাও জঙ্গিকে এখনও পর্যন্ত চিহ্নিত করতে পারেনি প্রশাসন।

প্রথম অভিযানটি ছিল শনিবার ভোরে সুকমা জেলার বেলপোছা গ্রামে। পুলিশ এবং সিআরপিএফের যৌথ অভিযান চালায় গ্রাম লাগোয় জঙ্গলে। ২৬ মে রবিবার ভুয়ো এনকাউন্টারের প্রতিবাদে এলাকায় বন্ধ ডেকেছে মাওবাদীরা। তার আগের দিন অভিযান চালায় পুলিশ। তখনই দুপক্ষের গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয়েছে এক মাওবাদীর। দ্বিতীয় সংঘর্ষ হয় বিজাপুর জেলায়। সেখানে জাম্মেমার্কা এবং কামকান্নর গ্রামে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয় দুই মাওবাদীর। দুটি অভিযানেই বন্দুক, বুলেট এবং বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে বলে দাবি করে পুলিশ।

Advertisement

 

Advertisement

[আরও পড়ুন: যোগীরাজ্যে একাকী লড়াই মমতার ‘সৈনিকে’র, অখিলেশের সমর্থনে জয়ের স্বপ্ন ললিতেশপতির]

প্রসঙ্গত, মাওবাদী অধ্যুষিত ছত্তিশগড় রাজ্যে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে মাওবাদীদের বিরুদ্ধে লাগাতার অভিযান চালাচ্ছে নিরাপত্তাবাহিনী। যার সুফলও মিলেছে। এবছর এই নিয়ে ১১৫ জন নকশাল নিকেশ হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে। এর মধ্যে গত ৩০ এপ্রিল নারায়ণপুর ও কাঙ্কের জেলার সীমান্তে তিন মহিলা-সহ ১০ মাওবাদী প্রাণ হারায় এনকাউন্টারে। তারও আগে ১৬ এপ্রিল কাঙ্কেরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে মারা যায় ২৯ মাওবাদী। এর আগে গত ১৩ মে মহারাষ্ট্রে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে মৃত্যু হয় ৩ জনের।

 

[আরও পড়ুন: বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড গুজরাটের রাজকোটে, গেমিং জোনে জীবন্ত দগ্ধ অন্তত ৭]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ