Advertisement
Advertisement

যুদ্ধ আসন্ন! তিন বাহিনীর প্রধানের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী

বিকেলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে হতে চলেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার দুটি বৈঠক।

service chiefs meet Defence minister
Published by: Soumya Mukherjee
  • Posted:February 28, 2019 1:57 pm
  • Updated:August 24, 2022 4:15 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের সঙ্গে বৈঠকে বসেন তিন বাহিনীর সেনাপ্রধান। আজ, বৃহস্পতিবার দিল্লিতে এই বৈঠকে স্থল সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত, বায়ুসেনা প্রধান বিএস ধানোয়া ও নৌসেনা প্রধান সুনীল লাম্বা উপস্থিত ছিলেন। জানা গিয়েছে, শুক্রবার জম্মু-কাশ্মীরে সীমান্ত পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যাবেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। প্রসঙ্গত, বুধবার সকালে ভারতীয় আকাশসীমার ভিতরে ঢুকে আসা পাকিস্তানের এফ-১৬ জেটবিমানকে তাড়া করার সময় পাকিস্তানে ঢুকে পড়েন ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। সেখানে তাঁকে প্রচণ্ড মারধর করে পাকিস্তানের সেনা। রক্তাক্ত অবস্থায় দুচোখ বাঁধা অভিনন্দনের ভিডিও প্রকাশও করে তারা।

এরপরই ভারতজুড়ে শুরু অভিনন্দনকে দেশের ফিরিয়ে আনার দাবি উঠতে থাকে। পাকিস্তানের ডেপুটি হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠিয়ে বিষয়টির তীব্র নিন্দা করে ভারত। পাকিস্তানের সেনার তরফে যেভাবে রক্তাক্ত অবস্থায় ভারতীয় পাইলটের ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে তার প্রবল সমালোচনাও করা হয়। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়, ভারতীয় বায়ুসেনার আহত পাইলটের যে ভিডিও প্রকাশ্যে আনা হয়েছে তা নারকীয়তার নিদর্শন। এতে আন্তর্জাতিক মানধিকার আইন ও জেনেভা চুক্তির লঙ্ঘন হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি তাঁকে নিরাপদভাবে ভারতে ফিরিয়ে দেওয়া হোক।

Advertisement

[সেঞ্চুরি করে অভিনন্দনকে উৎসর্গ করলেন ঋদ্ধিমান]

Advertisement

সেই সঙ্গে পাকিস্তানকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, জেনেভা কনভেনশনের চুক্তি অনুসারে ভারতীয় জওয়ানের গায়ে একটা আঁচড়ও কাটার অধিকার নেই পাকিস্তানের। ভারতের আশা, অভিনন্দনকে সুস্থ এবং অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেবে পাকিস্তান। যদি তা নয়, তাহলে তার ফল যে ভাল হবে না তাও বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সকালে পাকিস্তান সেনা ভারতীয় বায়ুসীমা অতিক্রম করে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করে। ভারতের সীমা অতিক্রম করে সামরিক ঘাঁটিতে হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল পাকিস্তানের। কিন্তু ভারতীয় সেনার যোগ্য জবাবে পাকিস্তানের এই অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু পাক সেনার এই অপচেষ্টাকে মোটেই ভালভাবে নিচ্ছে না নয়াদিল্লি। এই হামলার পরই বুধবার দিনভর দফায় দফায় তিন সেনার প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করেন মোদি। বৈঠকে তিন সেনাপ্রধান প্রধানমন্ত্রীকে নিরাপত্তা পরিস্থিতি সম্পর্কে বিস্তারিত রিপোর্ট দিয়েছেন। পাক হামলা সম্পর্কেও বিস্তারিত জানানো হয়েছে। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রী সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছেন নিজেদের মতো এই হামলার জবাব দেওয়ার। কোনওরকম চাপের কাছে মাথা নোয়াবে না ভারত, তাও জানিয়েছেন। এতদিন পর্যন্ত ভারত শুধু পাকিস্তানের জঙ্গিদেরই জবাব দিচ্ছিল। এবার পাক সেনাকেও জবাব দেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সঙ্গে তিন সেনাপ্রধানের সঙ্গে বৈঠকের পর বৃহস্পতিবার সন্ধেয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে ৭ নম্বর লোককল্যাণ মার্গে অবস্থিত তাঁর বাসভবনে হতে চলেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। নিরাপত্তা সংক্রান্ত ক্যাবিনেট কমিটির সঙ্গে আলাদা করে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী। ওই বৈঠকগুলিতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে তৈরি হওয়া বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি অভিনন্দন বর্তমানকে কীভাবে ফিরিয়ে আনা যায় তা নিয়েও কথা হবে বলে জানা গিয়েছে। তিন সেনাপ্রধানের সঙ্গে কী কথা হল মন্ত্রিসভার বৈঠকে তা নিয়েও আলোচনা করবেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ