BREAKING NEWS

২৫ বৈশাখ  ১৪২৮  রবিবার ৯ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

রোগীর মৃত্যুর গুজবে রণক্ষেত্র হাসপাতাল! হেলমেট, ফ্যান দিয়ে মারধর নার্সকে

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: April 28, 2021 3:28 pm|    Updated: April 28, 2021 3:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh) আগ্রার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভয়াবহ এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media)। ওই হাসপাতালে এক রোগীর মৃত্যুর খবর ছড়ায়। তার পরই তাঁর আত্মীয়রা হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়, মারধর করা হয় নার্স এবং হাসপাতাল কর্মীদের। সেই ঘটনা ক্যামেরাবন্দি করে পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন কেউ। পরে হাসপাতালের তরফে জানা যায় ওই রোগীর মৃত্যু হয়নি। কেউ বা কারা মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে দিয়েছিলেন।

সেপ্টিসেমিয়া (রক্ত সংক্রান্ত সমস্যা) নিয়ে ইরফান নামের এক ব্যক্তি আগ্রা জেলার হরি প্রভাত থানা এলাকার লোটাস হাসপাতালে ভরতি হন। মঙ্গলবার খবর ছড়িয়ে যায় যে তিনি মারা গিয়েছেন। এই খবর পেয়েই হাসপাতালে উপস্থিত ইরফানের আত্মীয়, বন্ধুরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। ভাঙচুর চালাতে শুরু করেন হাসপাতালে। তা দেখে এক নার্স বাধা দিতে এলে ক্ষোভের মুখে পড়েন তিনিও। হাসপাতাল ভাঙচুর ছেড়ে ওই নার্সকে মারধর শুরু করেন ইরফানের আত্মীয়রা। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে হাতে থাকা হেলমেট দিয়ে এক ব্যক্তি ওই নার্সের মাথায়, শরীরে আঘাত করছেন। আর এক ব্যক্তি সামনে রাখা একটি স্ট্যান্ড ফ্যান তুলে এনে সজোরে আঘাত করেন নার্সকে। সঙ্গে সঙ্গে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। পরে তাঁকে উদ্ধার করেন হাসপাতালের অন্য কর্মীরা।

[আরও পড়ুন: কমিশনের চোখে ধুলো দিয়ে ‘উধাও’ নজরবন্দি অনুব্রত, হন্যে হয়ে খুঁজছেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা]

এই ঘটনার পর অভিযুক্তের বিরুদ্ধে হরি প্রভাত থানায় অভিযোগ জানানো হয় হাসপাতালের তরফে। পুলিশ ৪ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। গোটা ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে আগ্রা পুলিশ।

এই ঘটনার পর এসপি (সিটি) রোহন পি বোত্রে বলেন, ওই রোগীর মৃত্যু নিয়ে কেউ গুজব ছড়িয়ে দিয়েছিলেন। তার পরই হাসপাতাল ভাঙচুর এবং কর্মীদের মারধরের ঘটনা ঘটে। গোটা ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি, দেশের ১৫০ জেলায় হতে পারে লকডাউন!]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement