২৮ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংসারে অশান্তি হচ্ছে৷ শান্তি ফেরাতে তান্ত্রিকের সঙ্গে দেখা করেছিলেন স্বামী৷ তান্ত্রিক যদিও অশান্তির কারণ হিসাবে দায়ী করেছিলেন স্ত্রীকে৷ কিন্তু তা বলে তো আর স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া যায় না৷ আবার এদিকে অশান্তি বা দীর্ঘদিন কার ভাল লাগে? তাই সমাধানের উপায় তান্ত্রিকের সঙ্গে যৌন মিলন৷ স্বামীও মেনে নেন তান্ত্রিকের কথা৷ কিন্তু এই প্রস্তাব মেনে নেননি তরুণী৷ তার খেসারত দিতে হল প্রাণ দিয়ে৷

[ আরও পড়ুন: মুজফফরপুরে জ্বরে মৃত ৬৭ শিশু, বিষাক্ত লিচুকেই দায়ী করছেন চিকিৎসকরা]

উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ের বাসিন্দা ওই তরুণীর একটি সন্তানও রয়েছে৷ তান্ত্রিকের সঙ্গে সহবাসের সিদ্ধান্ত স্বামী মেনে নিয়েছিলেন ঠিকই৷ তবে পরপুরুষের সঙ্গে যৌনতার কথা মানতে পারেননি৷ এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই দম্পতির সঙ্গে অশান্তি চলছিল৷ শুক্রবার অশান্তি প্রায় চরমে পৌঁছায়৷ কথা কাটাকাটি হতে হতেই স্ত্রীকে নদীর ধারে নিয়ে যায় স্বামী৷ প্রথমে নদীতে ঢেলে ফেলে দেওয়া হয় তরুণীকে৷ প্রাণে বাঁচতে ছটফট করতে থাকেন তিনি৷ ভেবেছিলেন, সাহায্য পাবেন৷ তাই জাপটে ধরেছিলেন স্বামীর হাত৷ কিন্তু তাতে কোনও লাভ হয়নি৷ পরিবর্তে বাঁচানোর অজুহাতে স্ত্রীকে নদীতে ডুবিয়ে দেয় ওই ব্যক্তি৷ মায়ের চিৎকারে এদিকে ততক্ষণে ছেলেও নদীর পাশে চলে যায়৷ কিন্তু বাবার বকাঝকায় একরত্তি ছেলে মাকে বাঁচানোর সাহস দেখাতে পারেনি৷ শুধুমাত্র চোখের সামনে মায়ের মৃত্যু দেখে সে৷

[ আরও পড়ুন: কাজে বাধা ঋতুস্রাব, কর্মীদের বেশি খাটাতে বেআইনি ওষুধ প্রয়োগ সুপারভাইজারের]

এই ঘটনার খবর গিয়ে পৌঁছায় তরুণীর বাপের বাড়িতে৷ এক মুহূর্তও সময় নষ্ট না করে মৃতার ভাই ঘটনাস্থলে পৌঁছায়৷ এই ঘটনায় বোনের স্বামীর বিরুদ্ধে দাদন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি৷ মৃতার ভাই বলেন, ‘‘দিনকয়েক আগে ফোনে বোনের সঙ্গে কথা হয়েছিল৷ বোন বলেছিল তাড়াতাড়ি শ্বশুরবাড়ি গিয়ে তাঁকে নিয়ে যেতে৷ অশান্তি চলছে বুঝতে পেরেছিলাম৷ কিন্তু অশান্তির আসল কারণ কিছুই বুঝতে পারিনি৷’’ পুলিশ অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে অভিযুক্তদের খোঁজ শুরু করে৷ ইতিমধ্যেই সন্তদাস দুর্গা দাস নামে ওই তান্ত্রিক এবং মহিলার স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ পুলিশ সূত্রে খবর, ওই তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে থানায় এর আগেও একাধিক অভিযোগ দায়ের হয়েছে৷ গত বছর প্রচুর পরিমাণ হেরোইন-সহ ওই তান্ত্রিককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছিল৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং