৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গণপিটুনিতে ফের প্রাণহানি৷ জমিবিবাদ মেটাতে গিয়ে উন্মত্ত জনতা গণপিটুনি দেয় আবদুল গনি নামে ওই পুলিশকর্মীকে৷ ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি৷ মর্মান্তিক এই ঘটনার সাক্ষী রাজস্থানের রাজসামান্দ জেলা৷

[ আরও পড়ুন: অসমে ভয়াবহ বন্যাতেও অক্ষত বিষ্ণুমূর্তি, ঐশ্বরিক ক্ষমতার কাছে হার প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের!]

নিহত বছর আটচল্লিশের পুলিশ আধিকারিক আবদুল গনি কুঁয়ারিয়ার বাসিন্দা৷ সম্প্রতি একটি জমি জবরদখলের মামলার তদন্ত করছিলেন তিনি৷ তার জেরে শনিবার জমি পরিদর্শনে গিয়েছিলেন৷ তদন্তের স্বার্থে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলছিলেন৷ জিজ্ঞাসাবাদের মাঝেই আচমকা স্থানীয়দের একাংশ উত্তেজিত হয়ে পড়েন৷ পুলিশ আধিকারিকের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন তাঁরা৷ কথা কাটাকাটি থেকে হাতাহাতির সূত্রপাত৷ মুহূর্তের মধ্যে স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ পুলিশ আধিকারিককে ঘিরে ধরে৷ বেধড়ক মারধর করতে শুরু করে তারা৷ মারের চোটে রাস্তায় লুটিয়ে পড়েন পুলিশ আধিকারিক৷ যন্ত্রণায় ছটফট করতে করতে কিছুক্ষণের মধ্যেই মারা যান তিনি৷

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান জেলার উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকরা৷ ঘটনাস্থলে গিয়ে জখম পুলিশকর্মীকে উদ্ধার করেন তাঁরা৷ নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে৷ তবে চিকিৎসকরা জানান, মারা গিয়েছেন ওই পুলিশকর্মী৷ এই ঘটনায় এখনও কাউকেই গ্রেপ্তার করা যায়নি৷ তবে পুলিশ হামলাকারীদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু করেছে৷

[ আরও পড়ুন: দুই ‘রকেট মহিলা’র কেরামতিতেই আজ উড়বে চন্দ্রযান, প্রহর গুনছে গোটা দেশ]

তবে এই প্রথম নয়৷ এর আগেও একাধিকবার রাজস্থানে গণপিটুনির ঘটনা ঘটেছে৷ প্রাণহানিও হয়েছে৷ ২০১৭ সালে পহেলু খান ও তাঁর দুই ছেলে জয়পুর থেকে গরু কিনে হরিয়ানায় নিজেদের গ্রামে ফেরার পথে একদল লোক তাঁদের ঘিরে ধরে বেধড়ক মারধর করে। তাতে মৃত্যু হয় পহেলু খানের। এই ঘটনায় দেশজুড়ে তোলপাড় হয়৷ তবে তাতেও গণপিটুনির মতো নৃশংস ঘটনায় রাশ টানা যায়নি৷ পহেলু খানের মৃত্যুর ঠিক পরের বছর ২০১৮ সালে গরু চোর সন্দেহে রাকবর খান নামে এক যুবককে বেধড়ক মারধর করা হয়৷ পুলিশ তাঁকে উদ্ধারের কিছুক্ষণের মধ্যেই মারা যায় যুবকটি৷ গণপিটুনি রোধে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে প্রশাসন৷ তা সত্ত্বেও একের পর এক গণপিটুনিতে প্রাণহানির ঘটনায় আরও প্রকট অসহিষ্ণুতা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং