BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নাগরিক হওয়ার প্রমাণ দেয় না আধার, সুপ্রিম কোর্টে কবুল UIDAI কর্তৃপক্ষের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 23, 2018 10:58 am|    Updated: September 2, 2019 2:03 pm

Aadhaar only establishes identity and nothing more: UIDAI CEO Ajay Bhushan Pandey

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল যে, নাগরিকত্বের প্রামাণ্য নথি হিসাবে আধার কতটা নির্ভরযোগ্য? সত্যিই কি ভরসাযোগ্য? কারণ, বহুক্ষেত্রে প্রামাণিকতা যাচাইয়ে হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছিল বহু নাগরিককে। আর তখনই প্রশ্নটা উঠছিল।

সেই সন্দেহ যে একেবারেই অমূলক নয়, তা কার্যত স্বীকার করে নিল আধার কর্তৃপক্ষ। কারণ, সুপ্রিম কোর্টে বৃহস্পতিবার আধার কর্তৃপক্ষের (ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বা ইউআইডিএআই) সিইও অজয় ভূষণ স্বীকার করেছেন, আধার সবক্ষেত্রে ১০০ ভাগ প্রামাণিকতা যাচাই করতে পারে না। শুধু তাই নয়, এ কথা আগেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং মন্ত্রককে জানানো হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি মেনে নিয়েছেন, বর্তমানে এমন কোনও ব্যবস্থা নেই, যার মাধ্যমে ১০০ শতাংশ প্রামাণিকতা যাচাই করা যায়।

[গুগলে এই চারটি শব্দ লিখলেই মিলছে আধারের তথ্য, শিকেয় নিরাপত্তা]

এর আগে সুপ্রিম কোর্টই প্রশ্ন তুলেছে যে, অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের পেনশন তোলার ক্ষেত্রে কেন আধার বাধ্যতামূলক। যাঁরা পেনশন নিচ্ছেন, তাঁরা প্রাক্তন সরকারি কর্মচারী, এটাই যথেষ্ট। তাঁদের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ থাকা উচিত নয় বলেই সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানিয়েছে, পেনশন প্রকল্প চালান অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীরাই। তাই পরিচয় গোপন রাখার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। শুধু তাই নয়, শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, অসবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীদের পেনশন তোলার ক্ষেত্রে আধার বাধ্যতামূলকের অর্থ তাঁদের ‘বাদ দেওয়ার’ মতো। একই সঙ্গে আদালত জানিয়েছে, অনাবাসী ভারতীয়রাও যাতে পেনশনের সুবিধা পান, তা অবশ্যই সুনিশ্চিত করতে হবে সরকারকে।

এই পরিস্থিতির মধ্যেই ‘আধার’ কার্ডই যে দুর্নীতি মোকাবিলায় অন্যতম সেরা অস্ত্র তা মানছে কেন্দ্র। কারণ, কেন্দ্র জানিয়েছে, আধারের আগে সরকারি প্রকল্পে প্রকৃত উপভোক্তাদের চিহ্নিত করা কঠিন ছিল। এমনকী, গণবণ্টন ব্যবস্থার সমস্যার সমাধান খোঁজাও বেজায় দুষ্কর ছিল। সঙ্গে ছিল জাল প্যান কার্ডের রমরমা। কিন্তু আধার কার্ডের মাধ্যমেই একাধারে যেমন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা কারা পাবেন, তা খুঁজে পাওয়া সুবিধাজনক হবে, তেমনই গণবণ্টন ব্যবস্থার সমস্যারও সমাধান হয়েছে। বৃহস্পতিবার আধারের সমর্থনে সুপ্রিম কোর্টে এমনই কথা জানাল কেন্দ্র সরকার। আধারের সুরক্ষা নিয়ে কিছুদিন ধরেই নানা মহলে প্রশ্ন তোলা হচ্ছিল। সেই পরিপ্রেক্ষিতেই সুপ্রিম কোর্ট বুধবারই ‘আধার’ কর্তৃপক্ষের সিইওকে একটি ‘পাওয়ার পয়েন্ট’ দেখানোর কথা বলে। সেই মতো বৃহস্পতিবার শীর্ষ আদালতের সামনে ‘পাওয়ার পয়েন্ট’ দেখায় আধার কর্তৃপক্ষ।

সুপ্রিম কোর্টে এদিন সরকারের হয়ে সওয়াল করেন অ্যান্টর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চের সামনে তিনি জানান, আধার কেবলমাত্র সরকারি প্রকল্পের উপভোক্তাদের চিহ্নিত করবে তা-ই নয়, গোটা প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা এনে দুর্নীতিও দূর করবে। এমনকী সরকারি প্রকল্পের সুবিধেগুলি প্রকৃত উপভোক্তাদের ঘরে দ্রুত পৌঁছে দিতে সাহায্য করবে।

[আধারের সঙ্গে ভোটার কার্ডের সংযুক্তি বাধ্যতামূলক করতে চায় নির্বাচন কমিশন]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে