BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ড্রাগ মাফিয়াদের ত্রাস! মণিপুরের সেই ‘লেডি সিংঘম’কে হারাতে বাড়ি বাড়ি ঘুরছেন অমিত শাহ

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: February 26, 2022 7:52 pm|    Updated: February 26, 2022 10:03 pm

Amit Shah Campaigns Against Ex Cop of Manipur Brinda Thounaojam | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মণিপুরে প্রথম দফা ভোটের আর দু’দিন বাকি। সে রাজ্যে তেড়েফুঁড়ে প্রচার চালাচ্ছে গেরুয়া শিবির। জেতার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী বিজেপি (BJP)। কিন্তু তাঁকে হারাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। তারপরেও নিশ্চিন্ত হওয়া যাচ্ছে না! তিনি কে?

জেডিইউ (JDU) প্রার্থী। সেটাও অবশ্য আদত পরিচয় না। তিনি হলেন রাজ্যের প্রাক্তন পুলিশ আধিকারিক বৃন্দা দাউনাওজাম (Brinda Thounaojam)। মণিপুরে ‘লেডি সিংঘম’ হিসেবে পরিচিত। বৃন্দাই এবার ইয়াইসকুল বিধানসভায় বিজেপির কড়া প্রতিপক্ষ। যাঁকে হারাতে বাড়ি বাড়ি ছুটে গিয়ে প্রচার চালাতে হচ্ছে খোদ অমিত শাহকে।

[আরও পড়ুন: বড়সড় চ্যালেঞ্জের মুখে ভারতের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, ‘ভয়’ পাচ্ছেন নির্মলা]

বৃন্দার শ্বশুরের নাম জড়িয়েছিল নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে। কিন্তু নিজেকে অন্যভাবে প্রতিষ্ঠা দিয়েছেন তিনি। মণিপুরে মাদক মাফিয়াদের দৌরাত্ম পুরনো, সেই মাদক পাচারকারী মাফিয়াদের হাতেনাতে ধরে শিরোনামে আসেন বৃন্দা। ২০১৮ সালের এক অভিযানে ২৭ কোটি টাকার মাদক উদ্ধার করেন তিনি। এরপর পুলিশ মেডেলে সম্মানিত হন। সেই পুরস্কার দেন মণিপুরের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং (N Biren Singh)। যদিও ঘটনার মোড় ঘোরে অন্যদিকে।

বছর দু’য়েক পর দাবাং মহিলা পুলিশ আধিকারিক জানতে পারেন ওই মাদক কাণ্ডের সঙ্গে জড়িত খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং। দেরি না করে ২০২০ সালেই সরকারি পুরস্কার ফিরিয়ে দেন বৃন্দা। এরপরেই বৃন্দার জনপ্রিয়তা হু-হু করে আরও বাড়তে থাকে। মণিপুরের তরুণ প্রজন্মের কাছে সাহসিকতার প্রতিক হয়ে ওঠেন তিনি। ফলে রাজ্যের আইনমন্ত্রী তোকচোম সত্যব্রত সিং বৃন্দার বিরুদ্ধে দাঁড়ালেও নিশ্চিন্ত হতে পারছে না গেরুয়া শিবির। সে কারণেই দাবাং পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে প্রচারে নামতে হচ্ছে অমিত শাহকে।

[আরও পড়ুন: শেয়ার আনার আগে চমক! LIC-তে ২০ শতাংশ প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগে ছাড়পত্র মন্ত্রিসভার]

বৃন্দা বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন। তিনি বলেন, “বিষয়টিকে আমি ইতিবাচক হিসেবেই দেখছি। রাজ্যের একজন মন্ত্রী আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন, তিনি আবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে প্রচার করছেন। তবে আমার লড়াই মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে। একজন পুলিশ আধিকারিক হিসেবে মানুষের জন্য তেমন কিছু করতে পারিনি। বিধানসভায় নিজের উপস্থিতি জানান দিতে চাই।”

উল্লেখ্য, মণিপুর বিধানসভা ভোট হবে দুই দফায়। প্রথমদফা হবে ২৮ ফেব্রুয়ারিতে, দ্বিতীয় দফা ৫ মার্চে। ভোট গণনা তথা ফলাফল ঘোষিত হবে ১০ মার্চে।     

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে