Advertisement
Advertisement
Amul

তামিলনাড়ুতে আমুলের প্রবেশে কোণঠাসা স্থানীয় সংস্থা, দুগ্ধ-বিতর্কে শাহি হস্তক্ষেপ চাইলেন স্ট্যালিন

দক্ষিণের রাজ্য থেকে আমুলের দুগ্ধ সংগ্রহ বন্ধ করুন, দাবি তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর।

Published by: Kishore Ghosh
  • Posted:May 25, 2023 5:21 pm
  • Updated:May 25, 2023 5:24 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আরও এক দক্ষিণের রাজ্যে আমুল (Amul) বিতর্ক। সম্প্রতি তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) বিভিন্ন এলাকা থেকে দুধ সংগ্রহ শুরু করেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi) এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের (Amit Shah) রাজ্যের সমবায় গোষ্ঠী আমুল। এর ফলে কোণঠাসা হচ্ছে সে রাজ্যের দুগ্ধ বিপণন সংস্থাগুলি। এই অভিযোগ তুলেছেন খোদ তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন (MK Stalin)। এই বিষয়ে অমিত শাহকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন তিনি।

স্ট্যালিনের অভিযোগ, কেন্দ্রের দেওয়া ‘মাল্টি-স্টেট কো-অপারেটিভ লাইসেন্স’-এর সুবিধা নিচ্ছে আমুল। তামিলনাড়ুর কৃষ্ণগিরি জেলায় ‘চিলিং সেন্টার’ এবং একটি ‘দুগ্ধ প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র’ও বানিয়ে ফেলেছে তারা। এর ফলে স্থানীয় দুধ উৎপাদক, দুগ্ধজাত সামগ্রী নির্মাতা এবং সমবায় সংস্থাগুলি অসুবিধার পড়ছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উদ্দেশ্যে স্ট্যালিন বলেন, “তামিলনাড়ু-সহ দক্ষিণের রাজ্যগুলি থেকে আমূল যাতে দুধ সংগ্রহ করতে না পারে, অবিলম্বে সেই বিষয়ে নির্দেশ জারি করুন।” তাঁর আরও অভিযোগ, গুজরাটের সংস্থা এলাকাভিত্তিক দুগ্ধ সংগ্রহের নীতি লঙ্ঘন করছে। এর ফলে রাজ্যে অস্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতার আবহ তৈরি হচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে স্থানীয় সংস্থাগুলির।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ন্যাশনাল হেরাল্ড তদন্ত প্রভাবিত হতে পারে, রাহুলকে পাসপোর্ট দেওয়ার বিরোধিতায় সুব্র্যহ্মণ্যম স্বামী]

উল্লেখ্য, তামিলনাড়ুতে সর্বোচ্চ সমবায় বিপণন সংস্থার নাম ‘আভিন’। আভিন কো-অপারেটিভের আওতায় গ্রামীণ এলাকায় ৯,৬৭৩টি দুধ উৎপাদনকারী সমবায় সমিতি কাজ করে থাকে। যেখানে যুক্ত ৪ লক্ষ ৫০ হাজার মানুষ। স্ট্যালিনের দাবি, আমুলের কারণে সমস্যায় পড়ছে আভিন এবং তার সাড়ে চার লক্ষ সদস্য। তিনি আরও জানান, এতদিন যাবৎ আমুল কেবল সংস্থার উৎপাদিত দুগ্ধজাত সামগ্রী বিক্রি করছিল তামিলনাড়ুতে। এবার রাজ্য থেকে দুধ সংগ্রহ শুরু করেছে। যা কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না।

Advertisement

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরের উন্নত রাস্তা দেখাতে বাংলাদেশের ছবি শেয়ার! জি-২০’র পরও অব্যাহত বিতর্ক]

প্রসঙ্গত, এর আগে পড়শি রাজ্যে কর্ণাটকেও আমুল বিতর্ক দানা বেধেছিল। বিষয় কতকটা এক। একটি বিজ্ঞাপনে আমুল জানিয়েছিল, ‘শীঘ্রই বেঙ্গালুরুতে আসছি’। এরপর থেকেই সে রাজ্যের দুগ্ধ সংস্থাগুলি আতঙ্কিত। কংগ্রেস-সহ একাধিক রাজনৈতিক দলের অভিযোগ, স্থানীয় সংস্থাকে অসুবিধায় ফেলে মোদি-শাহের রাজ্যের সংস্থাকে ব্যবসার সুযোগ করে দিচ্ছে বিজেপি।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ