BREAKING NEWS

১ কার্তিক  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

নাবালিকা ধর্ষণ রুখতে কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুললেন নির্ভয়ার মা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 22, 2018 3:51 pm|    Updated: November 1, 2018 2:48 pm

Asha Devi mother of 2012 Delhi gangrape victim on ordinance to amend POCSO act

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে নাবালিকা ধর্ষণ রুখতে কড়া আইন এনেছে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদীর সরকার৷ ১২ বছরের কম বয়সি কোনও নাবালিকা ধর্ষণের শিকার হলে এখন থেকে দোষীকে ফাঁসিতে ঝোলানোর বন্দোবস্ত করেছে কেন্দ্র৷ কেন্দ্রের এই কড়া আইনকে স্বাগত জানালেও বেশ কিছু প্রশ্ন তুলেছেন নির্ভয়ার মা৷

[অর্ডিন্যান্সে সই রাষ্ট্রপতির, নাবালিকা ধর্ষণে এখন চূড়ান্ত সাজা মৃত্যুদণ্ড]

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে নির্ভয়ার মা আশাদেবী জানিয়েছেন, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত প্রশংসাযোগ্য৷ এই আইনের আওতায় শুধুই কেন ১২ বছরের নাবালিকারা বিচার পাবেন? কেন অন্য নির্যাতিতা এই একই ধারায় বিচার পাবেন না, প্রশ্ন তোলেন আশাদেবী৷ বলেন, ‘‘১২ বছর পর্যন্ত নাবালিকা ধর্ষণের অভিযোগে ফাঁসির শাস্তি খুবই ভাল পদক্ষেপ৷ কিন্তু, ১২ বছরের উর্ধ্বে নির্যাতিতারা কেন নয়? তারাও তো একইভাবে যন্ত্রণার শিকার৷ কিন্তু, তাঁদের ক্ষেত্রে কেন এই নতুন আইন কার্যকর হবে না? আমি মনে করি, দেশের সমস্ত ধর্ষকদের ফাঁসিকাঠে ঝুলিয়ে দেওয়া উচিত৷’’ রাষ্ট্রপতি পদে বসার পর নাবালিকা ধর্ষণ রুখতে কেন্দ্রের জারি করা কোনও অর্ডিন্যান্সে প্রথম স্বাক্ষর করেন রামনাথ কোবিন্দ৷ ফলে, এখন থেকে নাবালিকা ধর্ষণে বা ১২ বছরের কম বয়সি শিশুকন্যাকে ধর্ষণের সাজা হিসেবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হল।

[দু-একটা ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে এত বাড়াবাড়ির মানে হয় না, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্যে বিতর্ক]

একদিকে কাঠুয়া অন্যদিকে উন্নাও। দেশের দুই প্রান্তে দুই ধর্ষণের ঘটনায় রীতিমতো সাঁড়াশি চাপে পড়েছিল কেন্দ্র। যত দিন যাচ্ছিল তত প্রশাসনের উপর সাধারণ মানুষের ক্ষোভ বাড়ছিল। এই পরিস্থিতিতেই নয়া অর্ডিন্যান্স আনার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। ১২ বছরের কম বয়সি নাবালিকাকে ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ডের প্রস্তাব দেওয়া হয়। তা পাশ হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভাতেও। রাষ্ট্রপতির সম্মতি পেলেই তা আইনে পরিণত হওয়ার অপেক্ষায় ছিল। রবিবার গোড়াতেই সে সম্মতি দিয়ে দিলেন রামনাথ কোবিন্দ। সই করেন অর্ডিন্যান্সে। ফলে এখন থেকে তা দেশে বলবৎ হবে। অর্থাৎ নাবালিকা ধর্ষণে অন্যান্য সাজার পাশাপাশি এবার থেকে প্রয়োজনে মৃত্যদণ্ডও দিতে পারবে আদালত৷ ১৬ বছরের কম বয়সি মহিলাদের ধর্ষণের ক্ষেত্রে ন্যূনতম সাজা ২০ বছরের কারাদণ্ড করা হয়েছে। এক্ষেত্রে গণধর্ষণের ক্ষেত্রে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হল। ১২ বছরের কম বয়সি কন্যাদের ধর্ষণের ক্ষেত্রেও ন্যূনতম সাজা ১০ বছর থেকে বাড়িয়ে ২০ বছর করা হয়েছে৷ তবে, শুধুই কেন ১২ বছরের নাবালিকার এই আইনের আওতায় পড়বেন? কেন বাড়ানো হল না বয়সসীমা? ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তৈরি হয়েছে তুমুল বিতর্ক৷

[ধর্ষকদের আড়াল করছে সরকার, বিজেপিকে তুলোধোনা বৃন্দা কারাটের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement