BREAKING NEWS

২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘রাজস্থানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে গেহলটের সরকার’, দাবি পাইলটের

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 12, 2020 11:19 pm|    Updated: July 12, 2020 11:19 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চাপে রাখার কৌশল নাকি ঘুরিয়ে দলছাড়ার বার্তা দিলেন রাজস্থানের উপমুখ্যমন্ত্রী শচীন পাইলট? কংগ্রেসের অন্দরে এটাই এখন সবথেকে বড় প্রশ্ন। সোমবার রাজস্থানে বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। সেখানে থাকছেন না পাইলট। রবিবার রাতে সংবাদ সংস্থা সূত্রে এমনটাই খবর। এরপরই জল্পনা আরও বেড়েছে। যদিও বিজেপির দাবি, পাইলটের সঙ্গে তাঁদের কোনও যোগাযোগই হয়নি। সে কথা অব্শ্য মানতে নারাজ রাজনৈতিক মহল। তাঁদের দাবি, মধ্যপ্রদেশের কায়দায় কংগ্রেসের ঘর ভাঙছে গেরুয়া শিবির। 

এদিন শচীন দাবি করেছেন, তাঁর সঙ্গে ৩০ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। তিনি আপাতত দিল্লিতে রয়েছেন। এদিকে জয়পুরে সাংবাদিক সম্মেলন করে কংগ্রেসের তরফে দাবি করা হয়েছে, কংগ্রেসে কোনও ফাটল ধরেনি। সকল বিধায়কই তাঁদের সঙ্গে আছেন। এদিকে রবিবার রাতেই দিল্লি থেকে রাজস্থানে উড়ে যাচ্ছেন কংগ্লেসের বর্ষীয়ান নেতা অজয় মাকেন ও রণদীপ সিং সূরজওয়ালা। আপাতত সোমবারের বৈঠকের দিকে তাকিয়ে সকলে। সূ্ত্রের খবর, বেশ কয়েকজন নির্দল বিধায়কও পাইলটকেই সমর্থন করছেন। ফলে গেহলটের সরকার এই মুহূর্তে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে বলে দাবি পাইলট ঘনিষ্ঠদের। এমনকী এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটা দাবি করেছেন খোদ পাইলটই।

[আরও পড়ুন : প্রতিভাবানরা কংগ্রেসে মর্যাদা পান না’, পাইলটের পাশে দাঁড়িয়ে টুইট জ্যোতিরাদিত্যর]

এদিকে শচীনের সঙ্গে দিল্লি আসা বিধায়কদের মধ্যে তিনজনের গলায় উলটো সুর শোনা গিয়েছে। তাঁদের দাবি, “আমরা কংগ্রেসের সৈনিক। শেষদিন পর্যন্ত কংগ্রেসেই থাকব। ব্যক্তিগত কাজে দিল্লি এসেছিলাম।” সূত্রের খবর, নিজের ক্ষমতা প্রদর্শন করতেই বিধায়কদের নিয়ে দিল্লি এসেছিলেন পাইলট। হাইকম্যান্ডের সঙ্গে দেখা করে নিজের দাবিদাওয়ার কথা জানাতেন। কিন্তু কংগ্রেস হাইকম্যান্ড তাঁর কথা শোনেনি বলেই সূত্রের খবর। ফলে এই জল কতদূর গোড়ায় তা জানতে আরও অপেক্ষা করতে হবে। 

[আরও পড়ুন : পাইলটকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকেও সরাতে চান গেহলট? কোন পথে রাজস্থান?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement