BREAKING NEWS

২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৭ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকছেন গেহলটই, উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে ফিরছেন পাইলট, দাবি সূত্রের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: October 1, 2022 9:10 am|    Updated: October 1, 2022 9:10 am

Ashok Gehlot likely to continue as Rajasthan CM; Sachin Pilot expected to be his deputy | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অনুগামীদের বিদ্রোহের পরও রাজস্থানের (Rajasthan) মুখ্যমন্ত্রিত্বের কুরসি খোয়াতে হচ্ছে না অশোক গেহলটকে। কংগ্রেস সূত্রের খবর, হাই কম্যান্ড শেষ পর্যন্ত গেহলটকেই মুখ্যমন্ত্রী পদে বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে তাঁর ল্যাজুড় হিসাবে জুড়ে দেওয়া হচ্ছে পাইলটকে (Sachin Pilot)। নিজের পুরনো উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ ফিরে পেতে পারেন তরুণ কংগ্রেস নেতা।

অনুগামীদের বিদ্রোহের জেরে কংগ্রেস সভাপতির দৌড় থেকে সরে যেতে হয়েছে গেহলটকে। দলের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর (Sonia Gandhi) কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন ‘বৃদ্ধ রাজপুত’। কিন্তু ক্ষমা চাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শচীনের নামে বিস্ফোরক কিছু অভিযোগও করেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী। গেহলট (Ashok Gehlot) দাবি করেছেন, রাজস্থানের ১০২ জন বিধায়ক তাঁরই সঙ্গে রয়েছেন। আর পাইলট শিবিরে মোটে ১৮ জন। লড়াইটা এই ১০২ জন বনাম ১৮ জনের। পাইলট যে রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার ফেলে দেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্র করেছিলেন সে কথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন গেহলট।

[আরও পড়ুন: বিপক্ষে ‘হাইকম্যান্ডের প্রার্থী’, কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচনে কেন পিছিয়ে শশী থারুর?]

রাজস্থানের তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী গেহলট যে কাগজটি নিয়ে সোনিয়ার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন, সেটির একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। তাতে লেখা রয়েছে, পাইলট সুযোগ পেলেই দল ছাড়তে পারেন। এর আগে একাধিকবার তিনি সরকার ফেলার চেষ্টা করেছেন। এমনকী, প্রদেশ সভাপতি থাকাকালীনও সরকার ফেলার ষড়যন্ত্র করেছেন তিনি। গেহলটের অভিযোগ, পাইলটই প্রথম প্রদেশ সভাপতি যিনি নিজের সরকার ফেলার ষড়যন্ত্র করেছেন।

[আরও পড়ুন: আটজন মিলে নাবালিকাকে গণধর্ষণ, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানো হল অত্যাচারের ভিডিও!]

সূত্রের খবর, কংগ্রেসের (Congress) অন্দরে কেউ কেউ এখনই পাইলটকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী পদে চাইছিলেন। কিন্তু গেহলটের নালিশের জেরে সেটা এখনই হচ্ছে না। তবে তাঁকে আগের মতো উপমুখ্যমন্ত্রী করা হতে পারে। অন্যদিকে গেহলটের উপর হাইকম্যান্ড অসন্তুষ্ট হলেও তাঁকে একপ্রকার বাধ্য হয়েই মুখ্যমন্ত্রীর পদে রেখে দেওয়া হচ্ছে। কংগ্রেস নেতৃত্ব মনে করছে, এখনই গেহলটকে সরিয়ে দিলে রাজ্য সরকার বাঁচানোটাই চাপের কাজ হয়ে যাবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে