BREAKING NEWS

২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা! করোনা রুখতে এবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে পরীক্ষা শুরু গুয়াহাটিতে

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: July 7, 2020 12:32 pm|    Updated: July 7, 2020 12:32 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুয়াহাটিতে নাকি শুরু হয়েছে গোষ্ঠী সংক্রমণ! এই কথা স্বীকার করে সকলকে রবিবারই সতর্ক করেছেন অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা (Himanta Biswa Sarma)। তাই আর কোনও অবহেলা নয়। করোনার সঙ্গে মোকাবিলা করতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনা পরীক্ষা করা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

আনলকের দ্বিতীয় পর্বে দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। নানাবিধ নিয়মের বেড়াজালকে বুড়ো আঙুল দিয়ে একের পর এক গোল করছে করোনা ভাইরাস। তাই কড়া হাতে রাজ্যের হাল ধরতে এবার গুয়াহাটিতে প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে করোনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিল অসম প্রশাসন। জুনের ১৫ তারিখের পর থেকে হঠাৎ করেই গুয়াহাটিতে (Guwahati) লাফিয়ে বাড়তে থাকে সংক্রমণের মাত্রা। মাত্র ১০ দিনেই গুয়াহাটিতে ২৭০০ জনের শরীরে মেলে ভাইরাসের সন্ধান। এতেই চোখ কপালে ওঠে চিকিৎসকদের। অন্যদিকে রাজ্যের COVID হাসপাতালগুলিতে বেড কম থাকায় ও তুলামূলকভাবে রোগীর সংখ্য বাড়তে থাকায় প্রমাদ গোনেন খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবার টুইট করে তাই তিনি জানান, “করোনা মোকাবিলায় এই প্রথম অসমে গণ-নমুনা পরীক্ষা করা হবে। ৭ জুলাই থেকে গুয়াহাটির ২ নম্বর ওয়ার্ড, মিউনিসিপ্যাল এলাকাগুলিতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার পরীক্ষা করা হবে। দুদিনের মধ্যে প্রায় ৩ হাজার নুমনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

[আরও পড়ুন:চিনের সঙ্গে সংঘাত এড়ানোর কৌশল! দলাই লামাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানালেন না মোদি]

তবে এই পদ্ধতিটি সফল করতে গ্রিড টেস্টিং (grid testing) পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে বলে জানান স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। এই পদ্ধতিকে ব্যবহার করে প্রায় ২০ মিনিটের মধ্যেই পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। ইতিমধ্যেই অসমে ২ লক্ষ অ্যান্টিজেন টেস্ট কিট আমদানি করা হয়। তবে গণ নমুনা পরীক্ষা করার আগে কন্টেনমেন্ট জোন ও সংক্রমিত স্থানগুলিকে চিহ্নিত করে সেখানকার বাসিন্দাদের মধ্যে আগে পরীক্ষা করা হবে জানা যায়। অন্যদিকে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় জুন মাসের শেষের দিকেই ১৪ দিনের কড়া লকডাউনের ঘোষণা করেছিল অসম সরকার। ১২ জুলাই শেষ হবে সেই লকডাউনের মেয়াদ তবে তার মধ্যেই সংক্রমণের মাত্রা ঘুম কেড়েছে চিকিৎসকদের।

[আরও পড়ুন:‘কোভ্যাক্সিন’ ট্রায়ালের চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু, প্রথম দুই পর্যায়ে পরীক্ষা ১,১০০ জনের উপর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement