৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘হিন্দি না জানলে বৈঠক থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন’, আয়ুশ মন্ত্রকের সচিবের মন্তব্যে নিন্দার ঝড়

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 22, 2020 5:29 pm|    Updated: August 22, 2020 5:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘হিন্দি বলতে না পারলে বৈঠক থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন।’ শনিবার ভিডিও কনফারেন্সে মন্ত্রিসভার ট্রেনিয়ের মাঝে এমনই মন্তব্য করে বসলেন আয়ুশ মন্ত্রকের সচিব বৈদ্য রাজেশ কোটেচা (Vaidya Rajesh Kotecha)। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই নিন্দার ঝড় উঠেছে। এমনকী সচিবকে সাসপেন্ড করারও দাবি উঠেছে।

বৈঠকের সেই ভিডিও ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে, আয়ুশ সচিব সাফ বলে দিচ্ছে, যাঁরা হিন্দি ভাষায় কথা না বলতে পারবেন না, তাঁরা বৈঠক থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন। কারণ তিনি ইংরাজিতে উত্তর দিয়ে উঠতে পারছেন না। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তামিলনাড়ুর নেতা-নেত্রীরা। যাঁরা ইংরাজিতে কথা বলতেই বেশি স্বচ্ছন্দ বোধ করেন। অথচ এভাবে ভরা বৈঠকে মুখের উপর বেরিয়ে যেতে বলায় বেজায় চটে যান অনেকেই। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ডিএমকে সাংসদ কানিমোঝি এদিন কোটেচাকে সাসপেন্ড করারও দাবি জানান।

[আরও পড়ুন: বরাত পাওয়ার দৌড়ে চিনা সংস্থা! ৪৪টি সেমি হাই স্পিড ট্রেনের টেন্ডার বাতিল রেলের]

তাঁর অভিযোগ, এভাবে হিন্দি ভাষার কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চলছে। যা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। টুইটারে লেখেন, “মন্ত্রিসভার ট্রেনিং পর্বে আয়ুশ মন্ত্রকের সচিবের এই মন্তব্য মেনে নেওয়া হবে না। আমরা এর তীব্র নিন্দা করি। এই ব্যক্তিকে সাসপেন্ড করে এঁর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া উচিত কেন্দ্রের। আর কতদিন হিন্দি না বলতে পারার জন্য এভাবে বাদ দেওয়া হবে?”

বিষয়টির তীব্র সমালোচনা করেন সাংসদ কার্তি চিদাম্বরমও। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের ছেলের মতে, হিন্দি বলার জন্য চাপ দেওয়ার বিষয়টি কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সঙ্গে প্রশ্ন তোলেন, “একজন ব্যক্তি ইংরাজি না-ই বলতে পারেন। তাই বলে কেউ হিন্দি না বলতে পারায় এমন অভব্য আচরণ কেন সহ্য করা হবে?” যদিও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কেন্দ্রের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

[আরও পড়ুন: নামেই আইন পাশ! ২৫ লক্ষ পণ না পেয়ে WhatsApp-এ স্ত্রীকে তিন তালাক যুবকের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement