BREAKING NEWS

২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ভোটের কাজে ব্যস্ত, ফণী নিয়ে মোদির সঙ্গে বৈঠকে ‘না’ বাংলার আধিকারিকদের

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 6, 2019 12:33 pm|    Updated: May 6, 2019 12:33 pm

Bengal's officials don't want to talk with PM over after Fani situation

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফণী পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার সময় নেই বাংলার প্রশাসনিক আধিকারিকদের৷ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সূত্রে খবর, নির্বাচনের জন্য আধিকারিকরা ব্যস্ত রয়েছেন বলেই জানিয়ে দিয়েছেন তাঁরা৷ যদিও নেহাত নির্বাচনী ব্যস্ততা নয়৷ এই ঘটনার নেপথ্যে রাজনীতির রং দেখছেন অনেকেই৷

ফণী পরবর্তী পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজখবরের ঘটনায় ইতিমধ্যেই লেগেছে রাজনীতির রং৷ মুখ্যমন্ত্রীর পরিবর্তে বাংলার রাজ্যপালের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেছেন বলে অভিযোগও করেছিল তৃণমূল৷ যদিও রবিবার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তৃণমূলের অভিযোগ নস্যাৎ করে দেওয়া হয়৷ একবার নয় দু’বার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করা হয়েছিল৷ কিন্তু কখনই ফোনে পাওয়া যায়নি তাঁকে৷মুখ্যমন্ত্রী জেলাসফরে। নবান্নে নেই, একথা জানিয়েই আধিকারিকরা ফোন রেখে দিয়েছিলেন৷ শহরে ফিরলে মুখ্যমন্ত্রী যোগাযোগ করে নেবেন বলেও জানিয়েছিলেন তাঁরা৷

[ আরও পড়ুন: আমেঠিতে রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে বুথ দখলের অভিযোগ স্মৃতি ইরানির]

এই বিতর্কের রেশ এখনও কাটেনি৷ তার মাঝেই আবার মাথাচাড়া দিয়েছে নয়া বিতর্ক৷ পঞ্চম দফা ভোটের দিন বাংলায় ভোটপ্রচারে আসছেন নরেন্দ্র মোদি৷ তিনি স্থির করেছিলেন ফণী পরবর্তী পরিস্থিতি জানার জন্য এদিনই বাংলার প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলবেন৷ তবে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সূত্রে খবর, আলোচনায় বসতে চাননি বাংলার আধিকারিকরা৷ কারণ হিসাবে নির্বাচনের জন্য ব্যস্ততাকেই দেখিয়েছেন তাঁরা৷ এই ঘটনার নেপথ্যে যদিও রাজনীতির গন্ধই পাচ্ছে ওয়াকিবহাল মহল৷ ইচ্ছাকৃতভাবেই মোদির সঙ্গে বাংলার প্রশাসনিক আধিকারিকদের কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না বলেও দাবি রাজনীতিকদের৷

ফণীর প্রভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ওড়িশা৷ ইতিমধ্যেই প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের জেরে প্রাণহানি হয়েছে অন্তত ২৯ জনের৷ মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ ভেঙে গিয়েছে বহু কাঁচাবাড়ি৷ এখনও বেশ কয়েকটি জায়গা জলমগ্ন হয়ে রয়েছে৷ বিদ্যুৎ পরিষেবাও স্বাভাবিক হয়নি৷ এই পরিস্থিতিতে ওড়িশা ঘুরে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ সঙ্গে ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান৷ ওড়িশার রাজ্যপাল গণেশি লাল, মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকর সঙ্গে বৈঠকও করেন তাঁরা৷ ফণীর মতো প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীর আগাম সতর্কতার প্রশংসা করেছেন মোদি৷সেই সঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে ১ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজেরও। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে