BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ফের সেলফি কাড়ল প্রাণ, ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু তিন বালকের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 3, 2017 11:50 am|    Updated: October 3, 2017 11:50 am

Bengaluru: 3 die under train wheels while taking selfie

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোটা দেশ এখন সেলফি জ্বরে আক্রান্ত। কারণে-অকারণে এই মুহূর্তে দেশে সেলফির ট্রেন্ডই সবথেকে বেশি। সেলিব্রিটি থেকে আম আদমি- নিজের ছবি তোলার লোভ সামলাতে পারেন না অনেকেই। দেশের তরুণ প্রজন্ম তো আরও একধাপ এগিয়ে। সেলফি তোলা এখন তাঁদের রোজকার রুটিনের মধ্যেই পড়ে। তবে সেটা করতে গিয়ে অনেকে বিপদও ডেকে আনছেন। ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা। গত এক বছরে লাফিয়ে বাড়ছে সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যুর ঘটনা। এবার ফের একবার প্রাণ কাড়ল মারণ সেলফি। মঙ্গলবার সকালে বেঙ্গালুরু থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত বিদাদিতে রেললাইনে দাঁড়িয়ে সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ হারাল তিন বালক।

[Jio-র দিওয়ালি বোনানজা, নামমাত্র মূল্যে আনলিমিটেড ডেটা]

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে তিন বন্ধু বিদাদিতে রেললাইনে দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছিল। কিন্তু সেই কাজে তাঁরা এতটাই মশগুল ছিল যে, খেয়ালই করেনি পিছন দিক থেকে কখন কাছাকাছি চলে এসেছে ট্রেন। আর এর ফলে যা হওয়ার তাই হল। ট্রেনের সজোরে ধাক্কায় প্রাণ হারালেন ওই তিনজন। দুর্ঘটনার ভয়াবহতা এত বেশি ছিল যে, পরে তিনজনের কাউকেই চেনা যায়নি। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে রেলপুলিশের আধিকারিকরা। তাঁরা মৃত তিনজনের পরিচয় জানার চেষ্টা করছে।

[মহরমের মিছিলে পাকিস্তানের সমর্থনে স্লোগান, ২১ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর]

এই প্রথম নয়, গত সপ্তাহেই বেঙ্গালুরুর রামানাগরা জেলার রামাগোন্ডলু বেট্টাতে বন্ধুদের সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে জলাশয়ে তলিয়ে যান বিশ্বাস জি নামে এক কিশোর। সতেরো বছরের এই কিশোর জয়নগরের ন্যাশনাল কলেজের ছাত্র ছিল। সম্প্রতি তিনি কলেজের ২৫ জন পড়ুয়ার সঙ্গে NCC-র জন্য পাহাড়ে ট্রেকিং করতে গিয়েছিলেন। পথে একটি পুকুরে স্নান করতে নামেন তাঁরা। কয়েকজন সাঁতারও কাটেন সেখানে। এরমধ্যেই কয়েকজন পড়ুয়া মোবাইল ফোন বের করে সেলফি তুলতে থাকেন। আর সেই সময়ই ঘটে দুর্ঘটনাটি। গভীরতা বেশি থাকায় বাকিদের সেলফি তোলার মধ্যেই বিশ্বাস জলে তলিয়ে যেতে থাকেন। তাঁদের ঠিক পিছনেই যে একজন জলে তলিয়ে যাচ্ছেন, সেটা কেউই লক্ষ্য করেননি। পুকুরে স্নান সেরে তারা একটি মন্দিরে যায়। সেখানেও বিশ্বাসের অনুপস্থিতি তারা বুঝতে পারেনি। সেলফিটি আবার দেখতে গিয়ে বিষয়টি খেয়াল করেন পড়ুয়ারা। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। সাড়ে ৩টে নাগাদ তার দেহ ভেসে উঠলে পরিবারকে জানানো হয়। গোটা ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষকেই দায়ী করেছেন মৃত ছাত্রের বাবা-মা। কলেজের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে তার পরিবার।

[বিজেপির অন্দরে মুকুলকে নিয়ে জোর আলোচনা, ইঙ্গিত কি স্পষ্ট!]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে