Advertisement
Advertisement

Breaking News

অপরাধী ধরার ইনাম হানিমুন ট্রিপ! আজব পুরস্কারে অবাক পুলিশকর্মী

কেন এই পুরস্কার পেলেন পুলিশকর্মী?

Bengaluru cop nabs dacoits, rewarded with honeymoon package
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:July 7, 2018 1:28 pm
  • Updated:July 7, 2018 1:28 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অপরাধীকে পাকড়াও করে প্রোমোশন বা মোটা অঙ্কের পুরস্কার তো অনেক পুলিশকর্মীই পেয়েছেন। কিন্তু এ একেবার অনন্য পুরস্কার। অপরাধীকে ধরার জন্য পুরস্কার কিনা গোটা হানিমুন ট্রিপ! চক্ষু চড়কগাছ! শুধু আপনার নয়, এমন পুরস্কারের কথা শুনে চোখ কপালে উঠেছে ওই পুলিশকর্মীরও। ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকে।

এবছর নভেম্বরে বিয়ে করতে চলেছেন পুলিশকর্মী কে ই ভেঙ্কটেশ। তার আগে কর্মজগতে একটি প্রশংসাজনক কাজ করেছেন তিনি। একা হাতেই পাকড়াও করেছেন তিন ডাকাতকে। তাঁর এই কাজে প্রোমোশন বা টাকার অঙ্কের পুরস্কার ঘোষিত হয়নি। হোয়াইটফিল্ডের পুলিশ কমিশনার আবদুল আহদ জানিয়েছেন, ভেঙ্কটেশকে তাঁর সাহসিকতার পুরস্কার দেওয়া হবে একেবারে অন্যরকম। তাঁকে বিয়ের উপহার হিসেবে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে সম্পূর্ণ মধুচন্দ্রিমার প্যাকেজও দেওয়া হবে। কেরলে হাউসবোটে থাকাও এই প্যাকেজের মধ্যে রয়েছে। এমন পুরস্কারে আপ্লুত বেল্লান্দুর থানার কনস্টেবল ভেঙ্কটেশ।

Advertisement

দুর্ঘটনা এড়াতে ট্রেন লাইনের তলায় এবার নয়া প্রযুক্তির স্লিপার ]

Advertisement

বৃহস্পতিবার রাতে সারজাপুর মেন রোডে পাহারার দায়িত্বে ছিলেন ভেঙ্কটেশ। রাত প্রায় পৌনে তিনটে নাগাদ তিনি একজনের কান্নার আওয়াজ শুনতে পান। তিনি যেখানে ছিলেন, ঘটনাস্থল তার থেকে প্রায় ২০০ মিটার দূরে। ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভেঙ্কটেশ দেখেন দু’টি মোটরবাইকে তিনজন চেপে দ্রুত বেরিয়ে গেল। রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ক্রমাগত ‘চোর চোর’ বলে চিৎকার করে যাচ্ছেন এক ব্যক্তি। তিনি তাঁর সর্বস্ব হারিয়েছেন। বিষয়টি বুঝে আর বিন্দুমাত্র দেরি করেননি ভেঙ্কটেশ। ওই দু’টি বাইকের পিছনে ধাওয়া করেন। প্রায় ৪ কিলোমিটার তাদের পিছু নিয়ে শেষ পর্যন্ত নাগালে আসে তিন দুষ্কৃতী। তাদের সামনে গিয়ে নিজের বাইকটি তাদের দিকে মাটিতে ছুঁড়ে দেন। অন্য মোটরবাইকে সওয়ার বাকি দু’জন পালিয়ে যায়। কিন্তু একজনকে তিনি ধরে ফেলেন। তাকে বেল্লান্দুর থানায় নিয়ে আসা হয়।

টানা ৭ মাস ধরে ছাত্রীকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত প্রিন্সিপাল-সহ ৩ শিক্ষক ও ১৫ ছাত্র ]

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই দুষ্কৃতীর নাম অরুণ দয়াল। বয়স ২০ বছর। তার মোবাইলের সূত্র ধরেই বাকিদের খোঁজ চলছে। পুলিশ কমিশনার আরও জানিয়েছেন, কনস্টেবল কে ই ভেঙ্কটেশ দেখিয়ে দিলেন পুলিশকে কীভাবে কাজ করতে হবে। সাধারণ নাগরিকের সুরক্ষার জন্য রাতে প্রহরা জরুরি। কেন ভেঙ্কটেশের মতো পুলিশকে দরকার, তা তিনি নিজেই প্রমাণ করে দিয়েছেন। এই ধরনের মানুষের জন্য আরও পুরস্কার চালু করা উচিত বলে জানিয়েছেন তিনি।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ