BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘দেশরক্ষার জন্য সেনাবাহিনীর প্রয়োজন অত্যাধুনিক প্রযুক্তির’

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 10, 2017 4:57 am|    Updated: June 10, 2017 5:05 am

Bipin rawat attends passing out parade at Indian military training academy

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে যদি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি থাকে এবং সেটি ঠিক মতো ব্যবহার করা যায়, তাহলে সাধারণ মানুষের সমস্যা অনেক কমে যাবে৷ মত সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াতের৷

[যীশু খ্রিষ্ট ‘শয়তান’! বিতর্কে গুজরাটের নবম শ্রেণির হিন্দি পাঠ্যবই]

শনিবার দেরাদুনে ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে প্রশিক্ষণ শেষ করলেন ৪২৩ জন শিক্ষার্থী৷ সেই উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন সেনাপ্রধান৷ ভারতীয় সেনাবাহিনীর নতুন সদস্যদের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সেনাবাহিনীতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি আমদানির পক্ষে সওয়াল করেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত৷ বলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে যদি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি থাকে এবং সেটি ঠিক মতো ব্যবহার করা যায়, তাহলে সেনাবাহিনী আরও শক্তিশালী হবে৷ সাধারণ মানুষের সমস্যাও কমে যাবে৷

[ফের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে পাহাড়, ম্যালে পর্যটকদের ভিড়]

হিজবুল কমান্ডার বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর থেকে অগ্নিগর্ভ কাশ্মীর৷ দফায় দফায় চলছে বিক্ষোভ, পাথরবাজি৷ বিক্ষোভকারীদের সামলে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে সেনাবাহিনী৷ পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে, গত এপ্রিল মাসে পাথর নিক্ষেপকারীদের হাত থেকে বাঁচতে এক কাশ্মীরি যুবককে জিপের সামনে বেঁধে দিয়েছিলেন মেজর লিটুল গগৈ৷ ঘটনায় দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে৷ এদিন কাশ্মীরের অশান্তির জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার বাড়বাড়ন্তকে দায়ী করেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত৷ তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ভুল তথ্য ছড়িয়ে দিয়ে কাশ্মীরের যুবকদের ভুল পথে চালিত করছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা৷

[জানেন, কেন একটা গাধার দর উঠল ১০ লাখ টাকা?]

এতদিন ভারতীয় সেনাবাহিনীতে  ডাক্তার, শিক্ষক,আইনজীবী, সিগন্যালিং ইন্সট্রাকটার ও ইঞ্জিনিয়ার পদে চাকরি পেতেন মহিলারা৷ কিন্তু যুদ্ধে তাঁদের কোনও ভূমিকা ছিল না৷ দীর্ঘ কয়েক দশকের টানাপোড়েনের পর, অবশেষে মহিলাদের যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানোর বিষয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছে সেনাবাহিনী৷ ইতিমধ্যেই সেই প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে বলে আগেই জানিয়েছিলেন সেনাপ্রধান৷ এদিন তিনি বলেন, প্রথমে মহিলাদের সেনা পুলিশের পদে নিয়োগ করা হবে৷ তারপর ধাপে ধাপে তাঁদের যুদ্ধে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হবে৷ বিপিন রাওয়াত বলেন, অভিযান চালানোর সময় হামেশাই সেনাবাহিনীকে সাধারণ মানুষের বাধার মুখে পড়তে হয়৷ অনেক সময় মহিলা জওয়ানদের সামনে দাঁড়িয়ে পড়েন৷ ফলে সমস্যায় পড়তে হয়৷

 

 

 


 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে