Advertisement
Advertisement

মানুষের চেয়ে গরুর মৃত্যুই বড় ইস্যু, বুলন্দশহর কাণ্ডে বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি নেতার

অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

BJP Lawmaker's controversial remarks on Bulandshahr Violence
Published by: Bishakha Pal
  • Posted:December 21, 2018 2:29 pm
  • Updated:December 21, 2018 2:29 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুলন্দশহরের ঘটনা নিয়ে ফের এক বিতর্কিত মন্তব্য। এবার মন্তব্য করলেন বিজেপির এক বিধায়ক। তিনি বলেছেন, সবাই দু’জন ব্যক্তির মৃত্যু নিয়ে চিন্তিত। এদিকে যে ২১টি গরু মারা গেল, তার দিকে কারওর নজর নেই।

কয়েক সপ্তাহ ধরে বুলন্দশহরের ঘটনা নিয়ে উত্তরপ্রদেশের পরিস্থিতি বেশ উত্তপ্ত। এই ঘটনার জন্য মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগেরও দাবি জানিয়েছেন ৮৩ জন প্রাক্তন আমলা। দেশের বুদ্ধিজীবীরাও এই ঘটনায় সিঁদুরে মেঘ দেখছেন। অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহও জানিয়েছেন, রাজনৈতিকদের কাছে গরুদের মৃত্যুই বড় হল। পুলিশ অফিসারের মৃত্যু তাদের কাছে কোনও বিষয় নয়! এরপর কোথায় নিজের স্বমূর্তি বাঁচানোর চেষ্টা করবে রাজনৈতিক কর্তাব্যক্তিরা, তা নয়। উলটে নিজের জায়গায় ঠায় দাঁড়িয়ে রইল রাজ্যের প্রধান শাসকদল। অনুপশহরের বিধায়ক সঞ্জয় শর্মা বলেছেন, “আপনারা শুধু সুমিত আর পুলিশ অফিসারের মৃত্যুই দেখছেন। ২১টি গরুর মৃত্যু দেখছেন না। অনুগ্রহ করে বুঝুন, যারা গরু মেরেছে, তারাই আসল দোষী। ওরা আমাদের গোমাতাকে মেরেছে।”

Advertisement

যোধপুর জেলে জামাই আদরে আফরাজুল কাণ্ডের খলনায়ক শম্ভুলাল ]

Advertisement

বুলন্দশহরের হিংসার পর বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। পরিস্থিতি সামাল দিতে নিহত পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিংয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানে তাঁর পরিবারকে রাজ্যের তরফে ৫০ লক্ষ টাকা আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে বলে জানান। এও প্রতিশ্রুতি দেন, পরিবারের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার জন্য শিক্ষাঋণের বন্দোবস্ত করে দেবেন তিনি। পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়ার আশ্বাসও দেন। কিন্তু তাতেও চিঁড়ে ভেজেনি। কারণ তারই মধ্যে মীরাটের আইজি রাম কুমার বলেন, তদন্তে শুরু করার উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ পুলিশের কাছে নেই। ফরেনসিক পরীক্ষার পর তাঁরা কাজ শুরু করতে পারবেন। সুবোধ কুমার সিংকে কারা গুলি করল, সুমিতই বা কাদের হাতে খুন হল, এগুলো তাঁদের কাছে স্পষ্ট নয়। বরং গরু কারা মেরেছিল, এটি তাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।

ক্রমাগত এমন প্রতিক্রিয়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষকদের কাছ থেকে আসতে থাকায় দু’সপ্তাহ আগে ৮০ জন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি আমলা একটি খোলা চিঠি লেখেন। তাতে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করা হয়। সেই চিঠিতে স্বাক্ষর করেন প্রাক্তন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা শিবশংকর মেনন ও প্রাক্তন বিদেশ সচিব শ্যাম সরণ।

মহিলার ঝুলন্ত মৃতদেহ থেকে উদ্ধার সদ্যোজাতের দেহ! ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ