BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাজপথ থেকে রাজদরবারে, প্রধানমন্ত্রীর মন্ত্রিসভায় এলেন ‘ওড়িশার মোদি’

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 31, 2019 1:51 pm|    Updated: May 31, 2019 7:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাংসারিক জীবনে কোনওকালেই মোহ ছিল না তাঁর৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মতো সন্ন্যাসী হওয়ার ইচ্ছা নিয়ে তিনি এসেছিলেন বেলুড় মঠে৷ কিন্তু মোদির মতোই তাঁকেও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বেলুড়ের মহারাজরা৷ বিধবা মা’কে ফেলে সন্ন্যাস জীবনে ব্রতি হওয়ার আজ্ঞা মেলেনি৷ ফলে আবারও স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গিয়েছিলেন তিনি৷ কিন্তু তাও সংসার করেননি৷ মায়ের মৃত্যুর পর থেকে একজন সন্ন্যাসীর মতোই কুড়ে ঘরে দিন কাটাচ্ছেন৷ এহেন ছাপোষা প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গিকেই নিজ মন্ত্রিসভায় ঠাঁই দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ প্রতিমন্ত্রী করলেন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প মন্ত্রক এবং পশু, গোপালন ও মৎস্য মন্ত্রকের৷

[ আরও পড়ুন: চিনকে নজরে রেখেই সিদ্ধান্ত? চমক দিয়ে মন্ত্রিসভায় প্রবেশ জয়শংকরের ]

সোশাল মিডিয়ার দৌলতে বর্তমানে দেশবাসীর কাছে পরিচিতি পেলেও, বালাসোরের এই সাংসদ ‘ওড়িশার মোদি’ নামেই রাজ্যবাসীর কাছে পরিচিত৷ দীর্ঘদিন ধরেই রাজনীতির সঙ্গে যোগ রয়েছে তাঁর, কিন্তু অন্যান্য রাজনীতিকদের থেকে অনেকটাই আলাদা তাঁর জীবনযাত্রা৷ সম্পত্তি বলতে রয়েছে একটি কুড়ে ঘর ও একটি সাইকেল৷ আর নিজের লোক বলতে রয়েছে এলাকার ছোট বাচ্চারা৷ জানা গিয়েছে, ১৯৫৫-তে ওড়িশার নীলগিরিতে জন্মেছিলেন প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গি৷ পড়াশোনা শেষ করে আধ্যাত্মিক জীবনের প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন৷ সাধনার পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নেন৷ কিন্তু বেলুড়ের মহারাজদের নির্দেশে আবারও ঘরে ফেরেন তিনি৷

[ আরও পড়ুন: ১৮ সাংসদ নিয়েও মোদির মন্ত্রিসভায় ব্রাত্যই বাংলা ]

এর আগে ২০০৪ ও ২০০৯ সালে দু’বার ওড়িশার বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গি৷ মজার বিষয় হল, ২০০৯-তে বিজেপির তরফে তিনি প্রার্থী ঘোষিত হলেও, নির্বাচনে নির্দল প্রার্থী হিসাবে লড়েন তিনি৷ কারণ, দলের টিকিট নিয়ে বাসে করে বাড়ি ফেরার পথে, সেই টিকিট হারিয়ে ফেলেন প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গি৷ সূত্রের খবর, এই অত্যন্ত সাদামাটা স্বভাবের জন্যই সকলের বিশ্বাস ও নির্ভরতার আরেক নাম হয়ে ওঠেন প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গি৷ গত লোকসভা নির্বাচনেও বালাসোর থেকেই বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি৷ কিন্তু সামান্য ভোটের ব্যবধানে হেরে গিয়েছিলেন৷ তবে এবার ১২ হাজারের কিছু বেশি ভোটে বিজেডি প্রার্থীকে হারিয়ে তিনি জয় পেয়েছেন৷ ওড়িশায় এলে যে ব্যক্তির সঙ্গে অবশ্যই দেখা করেন, এবার তাঁকেই নিজের মন্ত্রিসভায় ঠাঁই দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ কুড়ে ঘর থেকে এবার গণতন্ত্রের পীঠস্থানে জায়গা পেলেন ওড়িশার এই ছাপোষা মানুষটি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement