৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম বদলে রাখা হোক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নামে। এমনই দাবি জানালেন গায়ক তথা বিজেপি সাংসদ হংস রাজ হংস। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

[আরও পড়ুন: এক হাতে ‘সেরা কনস্টেবল’-এর মানপত্র, আরেক হাতে ঘুষ নিয়ে জেলে পুলিশকর্মী]

শনিবার দিল্লির বিখ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন উত্তর-পশ্চিম দিল্লি কেন্দ্র থেকে জয়ী সাংসদ হংস রাজ। সেখানেই প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা শোনা যায় তাঁর গলায়। জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে বাহবা জানিয়ে তিনি বলেন, “৩৭০ ধারা উঠে যাওয়ায় কাশ্মীর এবার আক্ষরিক অর্থেই স্বর্গে পরিণত হবে। প্রার্থনা করি, সকলে শান্তিতে থাক। ভাল থাক। আমি তো শুধু এটাই চায় যে আর কোনও বোমাবাজি যেন না হয়। কারণ ওই প্রান্তে কারও প্রাণ যাক বা এপ্রান্তে, মারা যান একজন মায়ের সন্তানই।” ঘুরিয়ে কংগ্রেসের সমালোচনাও করেন তিনি। গায়কের কথায়, “আমাদের পূর্বপুরুষরা ভুল করেছেন। যার ফল এখন আমরা ভোগ করছি।” আর তারপরই জওহরলাল নেহরুর নাম সরিয়ে মোদির নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের পরামর্শ দেন তিনি। বলেন, “তিনি যা করেছেন, প্রত্যেকেই প্রশংসা করছেন। তাই তো সবাই বিশ্বাস করে মোদি থাকলে সবই সম্ভব। সুতরাং তাঁর নামেও তো কিছু হওয়া উচিত। জেএনইউ বদলে এমএনইউ হয়ে যাক।” 

[আরও পড়ুন: বিয়েবাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ, লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা]

এনিয়ে ইতিমধ্যেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অনেকেই গায়কের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন। তাঁদের মতে, না ভেবেচিন্তে কিছু একটা বলে দিলেই চলে না। জেএনইউ শুধুই একটা নাম নয়, দেশের ঐতিহ্যও। তাই নামবদলের এমন পরামর্শ মূর্খামি ছাড়া আর কিছুই না।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং