১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে বিজেপি ও সমাজবাদী নেতার হাতাহাতি

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: December 9, 2018 3:21 pm|    Updated: December 9, 2018 3:24 pm

BJP, Samajwadi Party leaders scuffle in Live TV

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এতদিন রাজনীতিতে পারস্পরিক বিরোধিতা ছিলই। কিন্তু এবার তা লাইভ টিভি শোয়েও প্রকাশ্যে চলে এল। কথা হচ্ছে, বিজেপি ও সমাজবাদী পার্টির দ্বৈরথের। উত্তরপ্রদেশে দুই রাজনৈতিক দলের বিরোধিতা সর্বজনবিদিত। কিন্তু সেই দুই দলেরই দুই নেতার হাতাহাতি লাইভ দেখল বহু মানুষ। চ্যানেলের কর্মীরা তো বটেই, গন্ডগোল সামাল দিতে পুলিশকে পর্যন্ত আসতে হল। আটক হলেন সপা’র নেতা। তিনিও পালটা অভিযোগ দায়ের করলেন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে।

নয়ডায় অবস্থিত একটি জনৈক বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমের সেটে গন্ডগোলের সূত্রপাত। রাজনৈতিক বিতর্ক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন দুই নেতা। বিজেপির গৌরব ভাটিয়া এবং সমাজবাদীর মুখপাত্র অনুরাগ ভাদোরিয়া। তর্কাতর্কি হয় দুজনের মধ্যে। এধরনের বিতর্কসভায় আকছার উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়। চ্যানেল কর্তৃপক্ষও অভ্যস্ত এসব সামলাতে। তবে পরিস্থিতি এত উত্তপ্ত হয়ে উঠবে আন্দাজ করতে পারেননি কর্মীরা। লাইভ অনুষ্ঠানের মধ্যেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন দুজনে। গৌরব ভাটিয়ার অভিযোগ, অনুরাগই প্রথম গায়ে হাত তোলেন। পালটা তিনিও ধাক্কাধাক্কি করেন। অনুরাগের অভিযোগ, গৌরবই গন্ডগোলের সূত্রপাত করেছেন। চ্যানেলের কর্মীরা দ্রুত পরিস্থিতি সামলা দিতে দুজনকে আটকান। কিন্তু গন্ডগোল এমন জায়গায় পৌঁছায় যে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ পুলিশ ডাকতে বাধ্য হয়। নয়ডা ২০ সেক্টরের থানায় অভিযোগও দায়ের করেন গৌরব। পুলিশ অনুরাগকে নিজেদের হেফাজতে থানায় নিয়ে যায়।

[বুলন্দশহর কাণ্ডে মধ্যরাতে গ্রেপ্তার অভিযুক্ত সেনা জওয়ান]

গোটা ঘটনার একটি ভিডিও টুইটারে পোস্ট করেন বিজেপি নেতা। ১৭ সেকেন্ডের সেই ভিডিওয় দুজনকেই হাতাহাতি করতে দেখা যায়। কে শুরু করেছে তা ভিডিওতে স্পষ্ট নয়। কিন্তু গৌরব টুইট করে বলেছেন, তিনি একজন সচেতন নাগরিক। কোনওরকম প্ররোচনায় পা দেবেন না। পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেই বলে তাঁর বিশ্বাস। এদিকে, সমাজবাদী সাংসদ সুরেন্দ্র সিং নাগার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে অনুরাগের মুক্তির দাবিতে থানার বাইরে জড়ো হন। গন্ডগোলের আশঙ্কায় পুলিশ নয়ডার এক্সপ্রেসওয়ে থানায় অনুরাগকে নিয়ে যেতে বাধ্য হয় বলে জানান পুলিশ সুপার অজয় পাল শর্মা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে