১৪ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় জামিন মঞ্জুর সলমনের, আদালতের বাইরে উৎসব

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 7, 2018 3:19 pm|    Updated: April 7, 2018 3:58 pm

Blackbuck poaching: Salman Khan granted bail

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুঞ্জন ছিলই! আর এবার সেই সব জল্পনাকে সত্যি প্রমাণ করে ২০ বছরের পুরনো মামলায় শনিবার জামিন পেলেন সলমন খান। বিরল কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় এদিন যোধপুর দায়রা আদালত ব্যক্তিগত ৫০ হাজার টাকার বন্ডে ‘বজরঙ্গি ভাইজান’-এর জামিন মঞ্জুর করে। সম্ভবত আজ সন্ধ্যা সাতটার পর জেল থেকে বেরোবেন সলমন

এদিন বেলা তিনটে নাগাদ আদালত জামিন দেয় ‘সল্লু’কে। তবে এখনই দেশ ছাড়তে পারবেন না তিনি। বিচারক রবীন্দ্র জোশী এই জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনের নির্দেশ দেওয়ার আগে সিজেএম দেব খাতরির সঙ্গে দেখা করে একপ্রস্থ আলোচনা সারেন তিনি। বিচারক খাতরিই সলমনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের সাজা শুনিয়েছিলেন। আজ সলমনের আইনজীবী তাঁর জামিনের আবেদন জানানোর সময় আদালতে সলমনের বোন অর্পিতা ও আলভিরা উপস্থিত ছিলেন। সবমিলিয়ে ৪৮ ঘণ্টা পর জেল থেকে বেরোতে পারবেন সলমন। এই খবরে খুশির হাওয়া তাঁর অনুরাগীদের মধ্যে। ভাইজান জেল থেকে বেরোচ্ছেন জানতে পেরেই আদালতের বাইরে উল্লাসে মেতেছেন তাঁর ভক্তরা। চলছে সলমনের ছবিতে মালা পরানো। তাঁর সিনেমার পোস্টার নিয়ে মিছিলও বেরিয়েছে।

[সলমনের জামিনের আবেদনের শুনানির আগেই বিচারক-সহ ৮৭ জনের বদলি]

এদিন আদালতে শুনানি চলাকালীন এই মামলার সাক্ষ্য-প্রমাণ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠে যায়। প্রশ্ন ওঠে সাক্ষীদের বয়ানের সত্যতা নিয়েও। বিচারক রবীন্দ্র কুমার জোশীর কক্ষে চলছিল শুনানি। তিনিই সলমনকে ব্যক্তিগত ৫০ হাজার টাকার বন্ডের বিনিময়ে জামিন দেন। আজ বিকেল পাঁচটা নাগাদ জামিনের কাগজপত্র যোধপুর সেন্ট্রাল জেলে পৌঁছবে। তার ২ ঘণ্টা পরেই সলমন জেল থেকে বেরোতে পারেন। ৫২ বছরের অভিনেতার বিরুদ্ধে ২০ বছর আগে ‘হ্যাম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমার শুটিং চলাকালীন দুটি বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণকে গুলি করে হত্যার অভিযোগ ওঠে। এই মামলায় সলমনের সহ-অভিনেতা সইফ আলি খান, অভিনেত্রী টাব্বু, নীলম ও সোনালি বেন্দ্রেকে আগেই বেকসুর খালাস করেছে আদালত।

প্রথম থেকেই এই মামলাকে ঘিরে তুমুল উত্তেজনা ছিল আদালত চত্বরে। আজ সলমন জামিন পেতেই উল্লাসে মাতেন তাঁর সমর্থকরা। কিন্তু আদালতের নির্দেশে খুশি নন বিষ্ণোই সম্প্রদায়ের সদস্যরা। দুই রাত জেলে কাটানোর পর শনিবার সকালে সলমনের জামিনের মামলা ওঠে। দফায় দফায় চলে প্রশ্নোত্তর পর্ব। মাত্র ২৪ ঘণ্টা আগেই বড়সড় রদবদল ঘটে যায় যোধপুর সেশন কোর্টে। সলমনকে ৫ বছরের সাজা শুনিয়েছেন যে বিচারক, সেই দেব কুমার খাতরি-সহ মোট ৮৭ জন জুডিশিয়াল অফিসারকে বদলির নির্দেশ দেয় রাজস্থান হাই কোর্ট। বিচারক জোশীকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে রাজস্থানের সিরোহতে। তাঁর জায়গায় আসবেন ভিলওয়ারার সেশন বিচারক চন্দ্র কুমার সোঙ্গারা। বিচারপতি খাতরির জায়গায় আসছেন সমরেন্দ্র সিং শিকারওয়ার। তিনি এর আগে উদয়পুরের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন। বিচারক খাতরিই সলমনকে কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলায় বৃহস্পতিবার দোষী সাব্যস্ত করে তাঁকে ৫ বছরের কারাবাসের সাজা শোনান। সঙ্গে দশ হাজার টাকা জরিমানা। কিন্তু এবার স্বস্তিতে সলমনের পরিবারের। মনে করা হচ্ছে, সপ্তাহান্তের ছুটিটা বাড়িতেই কাটাতে পারবেন সল্লু।

[জেলে প্রথম রাত কীভাবে কাটালেন ‘কয়েদি নম্বর ১০৬’?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে