BREAKING NEWS

২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

চিনকে ভাতে মারার কাজ শুরু, চিনা সংস্থার বরাত বাতিল করল BSNL

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: July 1, 2020 2:43 pm|    Updated: July 1, 2020 2:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমেই অবনতি হচ্ছে ভারত-চিন সম্পর্কের। ফলে একে একে সকল চিনা সংস্থার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে কেন্দ্র। চিনা সংস্থাকে ভাতে মারতে বুধবার ভারতের টেলিযোগাযোগ বিভাগ BSNL 4G পরিষেবার আপগ্রেটের জন্য ডাকা দরপত্রও বাতিল করে দেয়।

সীমান্ত সংঘর্ষের পর দেশজুড়ে চিনা পণ্য বাতিলের ডাক ওঠে। রবিবার ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) আত্মনির্ভতার প্রসঙ্গ তুলে চিনের সকল দ্রব্য বাতিল করার আহ্বান জানান। তারপরেই কেন্দ্র সোমবার রাতে দেশবাসীর সুরক্ষার প্রসঙ্গ তুলে চিনের ৫৯টি অ্যাপকে নিষিদ্ধ করে দেয়। চিনকে সম্পূর্ণভাবে বয়কট করতে এবার কেন্দ্রের প্রধান টেলিযোগাযোগ বিভাগ BSNL ও MTNL-এর পরিষেবাগুলি আপগ্রেট করার দরপত্র বাতিল করে দেয়। সোমবারের পর কেন্দ্র BSNL-কে নির্দেশ দেয় দেশীয় পরিষেবা উন্নয়নের কোনও কাজে যেন চিনা কোনও সংস্থাকে বরাত না দেওয়া হয়। এমনকি তাদের সাহায্যও যেন না নেওয়া হয়। তাই BSNL-এর তরফে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশেই ফোর জি পরিষেবা উন্নত করার জন্য যে চিনা সংস্থাকে টেন্ডারের মাধ্যমে বেছে নেওয়া হয়েছিল, তা বাতিল করা হল। প্রায় আট হাজার কোটি টাকার চুক্তি হয়েছিল। পরিষেবা উন্নত করার জন্য যন্ত্রাংশ আসত চিন থেকে। কিন্তু তা বাতিল করা হয়েছে। পর্যবেক্ষকদের মতে, বেজিংকে (Beijing) জবাব দিতেই এই পদক্ষেপ করেছে নিয়াদিল্লি। কিন্তু প্রশ্ন হল দেশীয় পরিষেবা উন্নত করতে এবার কাকে দায়িত্ব দেওয়া হবে? চিনা সংস্থাকে বাদ দেওয়ার ফলে কি ফের টেন্ডার ডাকা হবে?

[আরও পড়ুন:তামিলনাড়ুতে বয়লার বিস্ফোরণে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা, আহত বহু]

সংবাদমাধ্যমে BSNL-এর এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যে আত্মনির্ভর ভারত গড়ার ডাক দিয়েছেন, সেই পথে হেঁটেই 4G পরিকাঠামো উন্নত করার কাজ করা হবে। অর্থাৎ যে যন্ত্রাংশ চিন থেকে আসার কথা ছিল তা এবার ভারতেই তৈরি হবে।”

[আরও পড়ুন:দেশজুড়ে বাড়ছে সংক্রমণ, করোনা নিয়ে বিদেশে কর্মরত চিকিৎসাকর্মীদের সঙ্গে কথা রাহুলের]

টেলি কমিউনকেশন বিশেষজ্ঞ মহেশ উপ্পল () বলেছেন, “মোবাইল ফোন উৎপাদনে ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। কিন্তু তার ৭৫ শতাংশ যন্ত্রাংশ আসে চিন থেকে।” তাঁর আশঙ্কা এত দ্রুত চিন থেকে সেসব আসা বন্ধ হয়ে গেলে ভারতে উৎপাদন প্রথমে ধাক্কা খেতে পারে। তাঁর কথায় মোবাইল ফোন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির মধ্যে প্রথম পাঁচে যেগুলি রয়েছে তার মধ্যে দুটিই চিনের। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল, ভারতে যদি প্রতিদিন ১০টি ফোন বিক্রি হয় তাহলে তার মধ্যে আটটি অপ্পো এবং শাওমির। তবে বিএসএনএল কর্তারা আশাবাদী, ভারতে তৈরি হওয়া যন্ত্রাংশ দিয়েই ফোর জি পরিকাঠামোকে ফের ঢেলে সাজানো হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement