১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জেলবন্দি ইন্দ্রাণীর তথ্যেই প্যাঁচে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিদম্বরম!

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: August 22, 2019 3:38 pm|    Updated: August 22, 2019 3:38 pm

Case Against P Chidambaram Built On Indrani Mukherjee's Statement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী পি চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়া। আর তার পরিপ্রেক্ষিতে ওই প্রবীণ কংগ্রেস নেতার গ্রেপ্তারি। পুরো ঘটনাটির সঙ্গে উঠে আসছে ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়ের নাম। হ্যাঁ, এই সেই ইন্দ্রাণী, যিনি বছর কয়েক আগে নিজের মেয়ে শিনা বোরাকে হত্যার অভিযোগে খবরের শিরোনামে এসেছিলেন। সব মহলে তুমুল আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছিলেন। তারপর অবশ্য কালের নিয়মে শিনা বোরা হত্যা মামলা নিয়ে আলোচনা কমে যায়। কিন্তু, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিদম্বরমের গ্রেপ্তারির পর ফের আলোচনার অভিমুখে ইন্দ্রাণী। তাঁর বয়ান থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই চিদম্বরমের বিরুদ্ধে এগোনো সম্ভব হয়েছে বলে দাবি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের।

[আরও পড়ুন: ‘অর্থনীতির বেহাল দশা নিয়ে প্রশ্ন তুলে গ্রেপ্তার চিদম্বরম’, দাবি কংগ্রেসের]

মেয়ে শিনাকে হত্যার অভিযোগে ২০১৫ সালের আগস্ট মাস থেকে জেলে রয়েছেন ইন্দ্রাণী। সেই চক্রান্তে শামিল থাকার অভিযোগে জেলবন্দি তাঁর স্বামী পিটার মুখোপাধ্যায়ও। এই ইন্দ্রাণী ও পিটার হলেন আইএনএক্স মিডিয়ার যুগ্ম প্রতিষ্ঠাতা। অর্থমন্ত্রকের অধীনস্থ ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রোমোশন বোর্ডের (এফআইপিবি)-র অনুমোদন না নিয়েই, সংস্থার জন্য কোটি কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ আনার অভিযোগ তাঁদের বিরুদ্ধে। বিপদ এড়াতে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের ছেলে কার্তির সাহায্য নিয়েছিলেন ইন্দ্রাণী ও পিটার। আর ছেলের কথা ভেবে চিদম্বরম তাঁদের অন্যায় সুবিধা পাইয়ে দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

কেন্দ্রে কংগ্রেস নেতৃত্বের ইউপিএ সরকার ক্ষমতায় থাকায় সময়েই ২০১০ সালে অনিয়মের বিষয়টি সামনে আসে। তবে ২০১৪ সালে কেন্দ্রে ক্ষমতা পরিবর্তন হয়ে বিজেপির হাতে আসার পর তদন্ত গতি পায়।

[আরও পড়ুন: অপেক্ষার অবসান, আগামী মাসেই ভারতের অস্ত্রভাণ্ডারে আসছে রাফালে]

এদিকে ইন্দ্রাণী জেলবন্দি থাকার সময়েই আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে চিদম্বরম পিতা-পুত্রের সম্পর্কে তথ্য দেন বলে খবর। চলতি বছরের জুলাই মাসে তিনি ওই মামলায় রাজসাক্ষী হতে চেয়ে আদালতে আবেদনও করেন। আবেদন গ্রহণ করে দিল্লির আদালত তাঁকে সেই অনুমতি দেয়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে