২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

প্রয়াত জয়ললিতার কেন্দ্রের উপনির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 10, 2017 4:27 am|    Updated: December 16, 2019 4:00 pm

 Cash For Votes Row: Chennai's RK Nagar By-Election Cancelled By Election Commission

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক : অবশেষে আশঙ্কাই সত্যি হল। টাকা দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগে বাতিল হতে চলেছে প্রয়াত তামিলনাড়ু মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার কেন্দ্র আর কে নগরের উপনির্বাচন। আগামী ১২ এপ্রিল উপনির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই ৮৯ কোটি টাকা খরচ করে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে। এরপরেই গোটা ঘটনাটি সরেজমিনে খতিয়ে দেখে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। সোমবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা থাকলেও রবিবার গভীর রাতে সূত্র মারফত এই খবর জানা গিয়েছে। এছাড়া সংবাদসংস্থা এএনআই-ও জানিয়েছে, নির্বাচন কমিশন আর কে নগর উপনির্বাচন এবং ভোট সংক্রান্ত সমস্ত বিজ্ঞপ্তি বাতিল করেছে।

[জানেন, নগদহীন লেনদেন করায় কত টাকা পুরস্কার দিল কেন্দ্র?]

এদিন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক নাসিম জাইদি এবং বাকি দুই নির্বাচন কমিশনার আঁচল কুমার জ্যোতি ও ওম প্রকাশ রাওয়াত মিলে তামিলনাড়ুর চিফ ইলেকটোরাল অফিসার রাজেশ লাখোনি এবং স্পেশাল অবজার্ভার বিক্রম বাতরার সঙ্গে বৈঠকও সারেন। এরপরেই উপনির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই নিয়ে গত একবছরে দ্বিতীয়বার টাকার বিনিময়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগে তামিলনাড়ুতে বাতিল করা হল ভোট। এর আগে গত মে মাসে আরাভাকুরিচি এবং থানজাভুরে বাতিল হয়েছিল ভোট।

[রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে নাইটদের ধরাশায়ী করল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স]

এর আগে আয়কর দপ্তরের পক্ষ থেকে ৩৫টি-রও বেশি জায়গায় তল্লাশি চালানো হয়। বাদ যায়নি রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সি বিজয়ভাস্করের বাড়িও। এরপরেই আয়কর দপ্তর তাঁদের রিপোর্টে বলে, এই কেন্দ্রে শাসকদলের প্রার্থী টিটিকে দিনকরণ ভোটারদের প্রভাবিত করতে ৮৯ কোটি টাকা বিলি করেছেন। এই দিনকরণ আবার সম্পর্কে শশীকলার ভাইপো। আর ভাইপোকে জেতাতে জেল থেকে শশিকলাও নাকি প্রভাব খাটিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তল্লাশির পর হাতে আসা নথি থেকে আর অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা গিয়েছে। যেমন, এই ৮৯ কোটি টাকা বিভিন্ন সূত্র থেকে এসেছে। ২৫৬ বুথের মধ্যে ২.৬ লক্ষ ভোটারের ৮৫ শতাংশের মধ্যে ওই টাকা ছড়ানোর হয়েছে বলেও অভিযোগ। ভোটারপিছু ৪০০০ টাকা বিলির চেষ্টা হয়েছে। এখানেই শেষ নয়, ওই নথি অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী ই পালানিস্বামী, বনমন্ত্রী দিন্দিগুল শ্রীনিবাসন, অর্থমন্ত্রী জয়কুমার-সহ আর সাত শীর্ষ নেতার উপর টাকা বিলির দায়িত্বও দেওয়া হয়েছিল। অভিযোগ উঠেছে মুখ্যমন্ত্রীকে নাকি ১৩.২৭ কোটি টাকা ৩৩ হাজার ভোটারের মধ্যে বিলি করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। যদিও শাসক শিবিরের জানিয়েছে, পনিরসেলভম মিথ্যে অভিযোগ করে দলকে কলঙ্কিত করতে চাইছেন। শশীকলার পক্ষ থেকেও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

[‘সিরিয়ায় আর একটাও বোমা ফেললে উড়িয়ে দেওয়া হবে আমেরিকাকে’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে