১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৪ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বাংলায় শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী, চিঠি দিলেন মমতাকে

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 2, 2022 8:51 pm|    Updated: August 2, 2022 9:00 pm

Central Education Minister writes to Bengal CM Mamata Banerjee on SSC Scam | Sangbad Pratidin

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি (SSC Scam) নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। গ্রেপ্তার হয়েছেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) ও তাঁর ঘনিষ্ঠ। এমন পরিস্থিতিতে নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান (Education Minister Dharmendra Pradhan)। তাঁর কথায়, এই নিয়োগ দুর্নীতি শিক্ষার মানের ক্ষতি করবে। ভবিষ্যত প্রজন্মকেও হতাশ করবে। পালটা দিয়েছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী অকারণ রাজনীতি করছে বলেও দাবি তাঁর।

শিক্ষক নিয়োগে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ সামনে এসেছে। পাশাপাশি তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মী নিয়োগেও বেনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। হাই কোর্টের নির্দেশে অধিকাংশ ক্ষেত্রে সিবিআই তদন্ত চলছে। গ্রেপ্তার হয়েছেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীও। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর চিঠিতে সেই সমস্ত দুর্নীতি, বেনিয়মের কথা উঠে এসেছে। যা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

[আরও পড়ুন: ঘোষিত এশিয়া কাপের পূর্ণাঙ্গ সূচি, জেনে নিন কোন দিন মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান?]

চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীকে ‘দিদি’ বলে সম্বোধন করে উদ্বেগ প্রকাশ করেন ধর্মেন্দ্র প্রধান। চিঠির বয়ান অনুযায়ী, “শিক্ষকরা সমাজের স্তম্ভ। তাঁরাই ভবিষ্যত প্রজন্মের লক্ষ্য স্থির করে দেন। বিশ্বের সফল নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলে এবং জীবনে সফল হওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা জোগান।” মন্ত্রীর কথায়, “বাংলার শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি নিশ্চিতভাবে শিক্ষার মানের ক্ষতি করবে। ভবিষ্যত প্রজন্মকেও হতাশ করবে।” তাই মানুষের মনে আস্থা ফেরাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার কথাও লিখেছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী। উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শিক্ষামন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী তথা বাংলার সাংসদ ডা. সুভাষ সরকারও। তাঁর কথায়, “পুরো বিষয়টার তদন্ত হলে অনেক নামই সামনে আসবে।”

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীক উদ্বেগকে ‘অকারণ রাজনীতি’ বলে কটাক্ষ করেছেন কুণাল ঘোষ। তাঁর কথায়, “অকারণ রাজনীতি করছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। বাংলার শিক্ষার মান নিয়ে ওঁকে ভাবনে হবে না। মান ঠিকই আছে। সম্প্রতি সর্বভারতীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মানের তালিকা প্রকাশ হয়েছে, তাতে রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিস্থিতি সকলেই দেখেছেন। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় (বিশ্বভারতী) অবনমন হয়েছে।” তিনি আরও বলেন. ভবিষ্যত প্রজন্মের কথা ভেবেই যারা এই খারাপ কাজের সঙ্গে যুক্ত তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: ঘোষিত এশিয়া কাপের পূর্ণাঙ্গ সূচি, জেনে নিন কোন দিন মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে