২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

ঠিকমতো পরীক্ষাই হয়নি, ত্রুটিপূর্ণ টেস্ট কিট নিয়ে ভারতের অভিযোগ ওড়াল চিন

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 28, 2020 8:44 pm|    Updated: April 28, 2020 8:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ত্রুটিপূর্ণ টেস্ট কিট নিয়ে ভারতের অভিযোগ ওড়াল চিন। চিনের দাবি, গুণগত মান পরীক্ষা করেই ইউরোপ ও লাতিন আমেরিকার বহু দেশে এই টেস্ট কিট রপ্তানি করা হয়েছে। কিন্তু ঠিকমতো পরীক্ষা না করে কিটগুলিকে ত্রুটিপূর্ণ তকমা দেওয়ায় বেজায় ক্ষুব্ধ চিন।

প্রসঙ্গত, ভারতের করোনা আক্রান্তদের পরীক্ষা করতে চিনের দুটি সংস্থার কাছ থেকে ২৭ মার্চ পাঁচ লক্ষ টেস্ট কিটে বরাত দেওয়া হয়। গুয়াংঝৌয়ের ওন্ডফো বায়োটেক (Wondfo Biotech ) ও লিভজোন ডায়াগনস্টিক্স (Livzon Diagnostics) থেকে এই কিটগুলি নেওয়া হয়। এই কিটগুলি ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয় করোনা আক্রান্তদের চিহ্নিত করার জন্য। রাজস্থান ও পশ্চিমবঙ্গ থেকেই এই টেস্ট কিটের গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয় ও জানান হয় পরীক্ষায় সঠিক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। আইসিএমআর-এর (ICMR) তরফ থেকে প্রথমে র‍্যাপিড টেস্ট কিট ব্যাবহারে নিষেধ করা হয়। পরে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় র‍্যাপিড টেস্ট কিট ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

আইসিএমআরের তরফ থেকে এও জানানো হয় যে, কঠোরভাবে পরীক্ষা চালানোর সময় এই টেস্ট কিট ব্যবহার করতে হবে যদি সঠিক ফল না প্রকাশ হয় তাহলে সংস্থাগুলির কাছে অভিযোগ জানান হবে। প্রয়োজনে তাদের কাছে ভাল কিট পাঠানোর দাবি জানান হবে। বিগত কয়েকদিন ধরে করোনার র‍্যাপিড টেস্ট কিটের গুণগত মান নিয়ে বিতর্ক তৈরি হওয়ায় এই দুই চিনা প্রস্তুতকারক সংস্থা দাবি করে যে, কিটের গুণগত মান সঠিক। তবে ভারতীয়দের ব্যবহার পদ্ধতি ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় সঠিক ফল পাওয়া যায়নি। এই প্রস্তুতকারী সংস্থা দুটি ভারতীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের পদ্ধতি দেখে ব্যবহার করার পরামর্শ দেন।

[আরও পড়ুন: মৃদু উপসর্গ দেখা দিলে বাড়িতেই আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা, নয়া নির্দেশিকা কেন্দ্রের]

দিল্লিতে চিনা দূতাবাসের তরফে টেস্ট কিটের বরাত বাতিল করা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। দূতাবাসের মুখপাত্র জি রং একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘ঠিকমতো পরীক্ষা না করে, দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো চিনা পণ্যকে ত্রুটিপূর্ণ বলে দাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ICMR-এর সিদ্ধান্তে আমরা উদ্বিগ্ন।’ তিনি আরও বলেন, ‘যে দুই সংস্থা কিটগুলি তৈরি করেছে, তারা ইউরোপ, এশিয়া এবং লাতিন আমেরিকার বহু দেশেও কিট পাঠিয়েছে। এখনও পর্যন্ত সেগুলি নিয়ে কোনও সমস্যা হয়নি। ব্যবসা-বাণিজ্যে চিনের যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। প্রতিবেশি দেশগুলির প্রতি চিন আন্তরিক। আশা করি, ভারত এগুলি মাথায় রাখবে এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থার সামনে সমস্যার কথা স্পষ্টভাবে তুলে ধরবে।’

[আরও পড়ুন: সেপ্টেম্বরেই তৈরি হয়ে যাবে করোনার টিকা! চাঞ্চল্যকর দাবি ভারতীয় সংস্থার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement