×

৫ চৈত্র  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ ২০১৯   |   শুভ দোলযাত্রা।

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লোকসভা ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হতেই জোর কদমে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলি। বিজেপি ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ু, বিহার, মহারাষ্ট্র, অসমের মতো গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে জোট সমীকরণ চূড়ান্ত করে ফেলেছে বিজেপি। কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা অবশ্য জোট অঙ্কে খানিকটা পিছিয়েই ছিল। মুখে মহাজোটের কথা বললেও একাধিক রাজ্যে জোটের রূপরেখা এখনও স্পষ্ট নয়। ভোট ঘোষণার পর তাই তৎপরতা বিরোধী শিবিরেই বেশি।

[সন্ত্রাস মোকাবিলায় মনমোহনের থেকে মজবুত মোদি, স্বীকারোক্তি শীলা দীক্ষিতের]

বুধবার দিল্লিতে দুই রাজ্যের জোট সমস্যার সমাধানে বৈঠকে বসেছিল বিরোধীরা। একটি কর্ণাটক, অপরটি বিহার। শেষ পর্যন্ত কর্ণাটকের জট কেটেছে। সূত্রের খবর, কর্ণাটকের ২৮টি আসনে ২০-৮ ফর্মুলায় রাজি হয়েছে কংগ্রেস-জেডিএস। কংগ্রেস লড়বে ২০টি আসনে জেডিএসের ভাগে যাচ্ছে ৮টি আসন। শুরুর দিকে অন্তত ১২টি আসনের দাবিতে অনড় ছিল দেবেগৌড়ার দল। অন্যদিকে, কংগ্রেস কোনওভাবেই ৬টির বেশি আসন ছাড়তে রাজি ছিল না। শেষ পর্যন্ত দুই শিবিরই কিছুটা সমঝোতা করে ২০:৮ ফর্মুলায় রাজি হল। জেডিএস লড়বে উত্তর কন্নড়, চিকমাগালুর, সিমোগা, টুমকুর, হাসন, মান্ড্য, বেঙ্গালুরু এবং বিজয়পুরায়। বাকি আসনগুলি যাবে কংগ্রেসের ভাগে। কর্ণাটকে জোট জট কাটলেও, বিহারে এখনও চূড়ান্ত হয়নি মহাজোটের আসনরফা। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে কংগ্রেস নেতা কে সি ভেনুগোপালের বাড়িতে দফায় দফায় বৈঠকের পরও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসা সম্ভব হয়নি। আসলে, বিহারে বিজেপি-বিরোধী মহাজোটে শরিক অনেক। আরজেডি-কংগ্রেসের পাশাপাশি জোট শিবিরের অংশ হিসেবে রয়েছে উপেন্দ্র কুশওয়াহ-র আরএলএসপি, রয়েছে জিতন রাম মাঁঝির হিন্দুস্তান আওয়াম মোর্চা, রয়েছে শরদ যাদবের এলজেপি, বাম দল-সহ একাধিক ছোট দল। তাই আসন বণ্টনের জটিলতা অনেক। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে, আরজেডি ১৮-২০, কংগ্রেস ১০-১২, আরএলএসপি ৩, হাম ২টি আসনে লড়বে। বাকি আসনগুলি লড়বে ছোট দল বা বামেরা। তবে, চূড়ান্ত হয়নি কিছু।

[ভাঙন অব্যাহত, বিজেপিতে যোগ দিলেন বিক্ষুব্ধ তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিং]

এদিকে, বিরোধী শিবিরের জোট তৎপরতার মধ্যেই দুঃসংবাদ কংগ্রেসের জন্য। সোনিয়া ঘনিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা টম ভড়াক্কন শিবির বদলে যোগ দিলেন বিজেপিতে। দল সেনার সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তোলায় শিবির বদলাতে বাধ্য হয়েছেন, এমনটাই দাবি বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেতারা। যদিও কংগ্রেস শিবিরের দাবি, লোকসভায় টিকিট পাবেন না আঁচ পেয়েই দল ছেড়ছেন টম। সূত্রের খবর, কেরলের কোনও আসন থেকে বিজেপির টিকিটেই লড়বেন তিনি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং