BREAKING NEWS

১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘বিলাসবহুল বিমানে বিশ্বভ্রমণের মজাই আলাদা!’ বিশ্ব পর্যটন দিবসে মোদিকে খোঁচা কংগ্রেসের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: September 27, 2022 2:41 pm|    Updated: September 27, 2022 3:51 pm

Congress takes swipe at PM Narendra Modi on World Tourism Day | Sangbad Pratidin

ছবি: কংগ্রেসের টুইট।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘মাস্ট বি ফান, ফ্লাই সেফ’ অর্থাৎ ‘নিশ্চয়ই মজার, নিরাপদ হোক উড়ান’। ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন দিবসে (World Tourism Day) প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) লাগাতার বিদেশ ভ্রমণকে এই ভাষাতে কটাক্ষ করল কংগ্রেস (Congress)। এদিন এই বিষয়ে ছবি-সহ টুইট করে রাহুল-সোনিয়ার দল। মোদির বিদেশে উড়ানের ছবির কোলাজ করে টুইট করা হয়েছে। ব্যয়বহুল বিদেশ ভ্রমণ নিয়ে কটাক্ষ করে শুভেচ্ছা জানানো হয় প্রধানমন্ত্রীকে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের শেষকৃত্যে অংশ নিতে টোকিওতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শেষকৃত্যের আগে জাপানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার সঙ্গে বৈঠকে বসারও কথা রয়েছে তাঁর। যদিও কংগ্রেসের ইঙ্গিত, আসল কথা হল বিলাসিতা, ব্যয়বহুল বিদেশ ভ্রমণ। বছরভর যাতে ব্যস্ত থাকেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। মোদির নয়টি বিদেশ ভ্রমণের ছবির কোলাজ করেছে কংগ্রেস। সবক’টি ছবি বিমানে ওঠার সময়ের। ছবির একপাশে লাল প্রচ্ছদপটের উপর সাদা কালিতে লেখা হয়েছে বিশ্ব পর্যটন দিবস।

[আরও পড়ুন: সন্তানে আগ্রহ হারাচ্ছে ভারতীয় মহিলারা! উদ্বেগজনক ভাবে কমছে প্রজননের হার]

ছবির ক্যাপশনে শুরুতে মোদিকে বিশ্ব পর্যটন দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছে কংগ্রেস। লেখা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী মোদিকে জানাই বিশ্ব পর্যটন দিবসের শুভেচ্ছা। এরপরই টুইট করে চরম কটাক্ষের মন্তব্য করা হয়, “দামি বিমানে গোটা বিশ্ব ঘুরেবেড়ানো নিশ্চয়ই খুব মজার। নিরাপদ হোক উড়ান।”

বিশ্ব পর্যটন দিবসে মোদিকে এভাবে কটাক্ষ করলেও রাজস্থানের গতকালের নাটকের পর অস্বস্তিতে রয়েছে কংগ্রেস। রবিবারের মিডনাইট মেলোড্রামার পর কংগ্রেস সদর দপ্তরের চারদিকে রাতারাতি বিরক্তির পাত্র হয়ে উঠেছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী। যাঁকে দলের সর্বাধিনায়ক করার পরিকল্পনা চলছিল, হঠাৎ করে তিনি হয়ে গিয়েছেন খলনায়ক। যা পরিস্থিতি, তাতে হাইকমান্ডের প্রাথমিক পছন্দের প্রার্থী হলেও আদৌ তিনি সভাপতি (Congress President) নির্বাচিত হতে পারেন কি না, তা নিয়েই গুঞ্জন শুরু হয়ে গেল কংগ্রেসের অন্দরেই।

[আরও পড়ুন: ফের দেশজুড়ে পিএফআই ডেরায় হানা দিল NIA, আটক শাহিনবাগের নেত্রী, ধৃত অন্তত ২৫০]

প্রথমে তাঁর অনুগামীদের বিদ্রোহ। তারপর তাঁদেরই আবার একের পর এক শর্ত আরোপ করে হাইকমান্ডকে কার্যত চ্যালেঞ্জ করা। সবশেষে বিদায়ী অন্তর্বর্তীকালীন দলনেত্রী সোনিয়া গান্ধীর (Sonia Gandhi) নির্দেশে দুই পর্যবেক্ষক মল্লিকার্জুন খাড়গে ও অজয় মাকেনের ডাক উপেক্ষা করে বৈঠকে না যাওয়া। গত কয়েকঘণ্টায় গেহলট ও গেহলট-সঙ্গীদের ধারাবাহিক কাজ ও পদক্ষেপে ‘বৃদ্ধ রাজপুত’-এর উপর ক্ষুব্ধ হাইকমান্ড। সবদিক বজায় রেখে পরিস্থিতি সামাল দিতে মাঠে নামানো হয়েছে কমলনাথকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে