Advertisement
Advertisement
Madhya Pradesh

হিংসা ছড়াতে মন্দির চত্বরে গরুর কাটা মাথা! NSA আইনে গ্রেপ্তার ৪

বুলডোজার দিয়ে ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে দুই অভিযুক্তের বাড়ি।

Conspiracy of creating communal tension in Madhya Pradesh NSA invoked against four

প্রতীকী ছবি।

Published by: Amit Kumar Das
  • Posted:June 15, 2024 9:10 pm
  • Updated:June 15, 2024 9:17 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মন্দির চত্বরে গরুর রক্তাক্ত কাটা মাথা! এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মধ্যপ্রদেশের (Madhya Pradesh) রতলাম জেলার জাবরা এলাকায়। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দাঙ্গা ছড়াতেই এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত ৪ যুবককে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁদের বিরুদ্ধে জাতীয় নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

পুলিশের (Police) তরফে জানানো হয়েছে, ‘সকালে মন্দিরে এসে বিষয়টি প্রথম নজরে পড়ে পুরোহিতের। এলাকায় সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বাড়াতে পরিকল্পিত ভাবে এই ষড়যন্ত্র করেছিল অভিযুক্তরা। যে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা হলেন, সলমন মেবানি(২১), শাকির কুরেশি(১৯), শহরুখ(২৪) এবং নওশাদ(২৮)। গত বৃহস্পতিবার রাতে এলাকার বহুল জনপ্রিয় জগন্নাথ মহাদেব মন্দিরে গরুর মাথা ফেলে আসে অভিযুক্তরা। এদের মধ্যে শাকির ও সলমন এলাকারই বাসিন্দা। শাকিরের বাড়িতে লাগানো সিসিটিভি (CCTV) ক্যামেরার দৌলতেই গোটা বিষয়টি স্পষ্ট হয়। এর পরই গ্রেপ্তার করা হয় বাকি অপরাধীদের।

Advertisement

[আরও পড়ুন: প্রতিবন্ধী মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন, গলা টিপে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ মায়ের]

এদিকে এই ঘটনায় শুক্রবার ব্যপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, বজরং দল-সহ একাধিক হিন্দু সংগঠন এলাকায় রাস্তা অবরোধের পাশাপাশি অনির্দিষ্টকালের জন্য বনধের ঘোষণা করে। একইসঙ্গে এলাকায় তৈরি হয় হিংসাত্মক পরিস্থিতি। খবর পেয়ে এলাকায় আসে স্থানীয় প্রশাসন। কাঁদানে গ্যাস ও লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি কিছু শান্ত বলেই দাবি করেছে। যে কোনও রকম অশান্তি সামাল দিতে গোটা এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘যেখানেই প্রচারে গেছেন সেখানেই জিতেছি’, মুচকি হাসিতে মোদিকে ‘ধন্যবাদ’ শরদের]

এদিকে এই ঘটনায় ৪ অভিযুক্ত গ্রেপ্তার হওয়ার পরই কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয় প্রশাসনের তরফে। শুক্রবার শাকির ও সলমানের বাড়িতে চালানো হয় বুলডোজার। প্রশাসনের দাবি, অবৈধভাবে ওই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছিল যার জেরেই তা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। শনিবার অভিযুক্তদের আদালতে পেশ করা হলে তাঁদের জেল হেফাজতে পাঠান বিচারক।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ