BREAKING NEWS

১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উচ্ছেদ অভিযান রুখতে আধিকারিকদের দিকে মোষ লেলিয়ে দিল দখলদাররা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 4, 2017 1:44 pm|    Updated: June 4, 2017 1:44 pm

Cops, Admin officers attacked by Buffaloe's

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মধ্যপ্রদেশের জব্বলপুরে জাতীয় সড়কে ধারে বেআইনিভাবে চলা দুগ্ধকেন্দ্রগুলি উচ্ছেদ করতে অভিযানে গিয়েছিলেন জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা৷ পুলিশই হোক কিংবা জেলা প্রশাসনের আধিকারিক, উচ্ছেদ অভিযানে গিয়ে প্রতিরোধের মুখে পড়তে হয় সবপক্ষকেই৷ কিন্তু তা বলে যে এমন কাণ্ড ঘটবে, তা কল্পনা করতে পারেননি কেউ-ই৷ উচ্ছেদ ঠেকাতে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকদের দিকে মোষ লেলিয়ে দিলেন বেআইনি দুগ্ধকেন্দ্রের মালিকরা৷ তবে এতেও ক্ষান্ত হননি তাঁরা, প্রশাসনিক আধিকারিকদের লক্ষ্য করে পাথরও ছোঁড়া হয়৷ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক-সহ ১২ জন আহত হয়েছেন৷

[চিট ফান্ড প্রতারণা কাণ্ডেও জড়িত ছিল বিহারের ‘টপার’]

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার পর বেআইনি গো-হত্যা রুখতে উদ্যোগ নেয় মোদি সরকার। গত ২৭ মে পশু হাটে গো-মাংস বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। কেন্দ্রের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পশুহাট বা পশুমেলায় আর বেআইনিভাবে মাংস বিক্রির অনুমতি মিলবে না৷ ধর্মীয় কারণে বলি দেওয়ার জন্য বা মাংস খাওয়ার জন্য গরু, মোষ, ষাঁড়, বলদ ও বাঁছুরের মতো গবাদি পশুগুলিকে আর বাজারে বিক্রি করা যাবে না৷ কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে দেশ জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠেছে৷ এরইমধ্যেই শনিবার উত্তরপ্রদেশের গরুকে বাঁচাতে গিয়ে পিষে মারে পুলিশের একটি জিপ৷ আর এবার প্রশাসনের বিরুদ্ধে মোষকে হাতিয়ার করল বেআইনি দখলদাররা৷ ঘটনার জেরে সাত নম্বর জাতীয় সড়কে দাপিয়ে বেড়াল প্রায় ৫০০টি মোষ৷ মোষের দাপাদাপিতে জাতীয় সড়কে বন্ধ হয়ে যায় যান-চলাচলও৷

[কেরোসিনে ভর্তুকি পেতেও এবার বাধ্যতামূলক আধার]

কিন্তু ঠিক কী ঘটেছিল?  জানা যাচ্ছে, জব্বলপুরে সাত নম্বর জাতীয় সড়কে ধারে দীর্ঘদিন ধরেই বেআইনি দুগ্ধকেন্দ্রের রমরমা ব্যবসা চলছে৷ সম্প্রতি পারিয়ত নদীর ধারে ইমলিয়া গ্রামে এমনই ২০টি বেআইনি দুগ্ধকেন্দ্রকে চিহ্নিত করে অভিযানে নামার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন৷ সেইমতো শনিবার সকালে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে জেলাপ্রশাসনের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছন৷ আর সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের দিকে প্রায় ৫০০টি মোষকে লেলিয়ে দেন বেআইনি দুগ্ধকেন্দ্রের মালিকরা৷ ঘটনায় রীতিমতো হকচকিয়ে যান অভিযানে আসা প্রশাসনিক আধিকারিকরা৷ প্রাথমিক বিহ্বলতা কাটার আগেই আবার পাথরও ছুড়তে শুরু করেন বেআইনি দখলদাররা৷ পুলিশের বেশ কয়েকটি গাড়িতে চলে ভাঙচুর৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কাঁদানে গ্যাস ও লাঠিচার্জ করতে হয়৷ ঘটনায় প্রশাসনের এক কর্তা-সহ ১২ জন আহত হয়েছেন৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ বেশ কয়েকজনকে আটকও করা হয়েছে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে