৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা: বাংলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২৮

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 28, 2020 9:00 am|    Updated: April 29, 2020 8:34 am

An Images

আতঙ্ক আর চিন্তার পারদ চড়ছেই। দাপট কমা দূরঅস্ত, যত সময় যাচ্ছে নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ যেন জাঁকিয়ে বসছে। ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা  ছাড়িয়ে গিয়েছে  ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই। মৃত্যু হয়েছে  ৯৩৭ জনের। তবে সুখবরও আছে। ২৩ শতাংশেরও বেশি রোগী সুস্থ হয়ে ফিরছেন। করোনা সংক্রমণ জব্দ করতে লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে। সম্ভাব্য তারিখ ২১ মে। গ্রিন জোনে ছাড় দিয়ে অন্যত্র চলবে লকডাউন। তবে সরকারি তরফে এ নিয়ে কোনও ঘোষণা হয়নি এখনও পর্যন্ত। বাংলার করোনা পরিস্থিতি বিশেষ ভাল নয়। ২২ জনের মৃ্ত্যু হয়েছে এ রাজ্যে। আক্রান্ত ৫২২। পরিস্থিতি মোকাবিলায় তৈরি হয়েছে কোভিড ম্যানেজমেন্ট কমিটি। করোনা সংক্রান্ত সমস্ত আপডেট:

রাত ৭.৪৬: হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায় জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধ। লকডাউনের মাঝেই রীতিমতো রণক্ষেত্র গোটা এলাকা। লকডাউন অমান্য করে রাস্তায় ভিড় জমান স্থানীয়রা। তাঁদের সরাতে গিয়ে আক্রান্ত হন একাধিক পুলিশ কর্মী।

সন্ধে ৭.০৫: সিবিএসসি বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ সিদ্ধান্ত। বার্ষিক পরীক্ষার ভিত্তিতেই ছাত্রছাত্রীদের পাশ করিয়ে দেওয়ার আরজি জানাল দিল্লি।
সন্ধে ৬.১৫:
রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫২২। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত ২৮ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২। সাংবাদিক সম্মেলনে জানালেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা।
সন্ধে ৫.৫০:
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৫১ জনের। ১৫৯৪ জনের শরীরে নতুন করে মিলেছে করোনার জীবাণু। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হল, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৯,৯৭৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২২,০১০ জন। মৃত ৯৩৭। 


সন্ধে ৫.১৫:
করোনায় আক্রান্ত এক সিআরপিএফ জওয়ান প্রয়াত। গত সপ্তাহ থেকেই দিল্লির এক হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি।
বিকেল ৪.৪৫:
COVID-19 পরিস্থিতি সামলাতে রাজ্য  সরকারের ভূমিকার সমালোচনা দিলীপ ঘোষের। বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদারকে ত্রাণ বিলিতে বাধা দেওয়া নিয়ে সরব হলেন পুলিশের বিরুদ্ধে।

বিকেল ৪.১৮: করোনা সংক্রমণের সঙ্গে যুদ্ধ করে সুস্থতার হার বাড়ছে। আজ সেই হার ২৩.৩ শতাংশ, গতকালের তুলনায় ০.৮৫শতাংশ বেশি।  তথ্য  স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লব আগরওয়ালের। জোর দিলেন হোম কোয়ারেন্টাইন, প্লাজমা থেরাপির উপরে। 

বিকেল ৪:  দেশে করোনা পরিস্থিতিতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্ত প্রায় ৯ হাজার। মৃতের সংখ্যাও এখানে সর্বাধিক। মোট আক্রান্ত ২৯৪৩৫। সাংবাদিক বৈঠকে তথ্য দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব। 

দুপুর ২.৫০: লকডাউনে থমকে পঠনপঠান। দেশে শিক্ষা ব্যবস্থা সংক্রান্ত আলোচনায় আজ রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়ালের। মিড-ডে-মিল ও সমগ্র শিক্ষা বিষয়ে ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনা।

দুপুর ১.৫৩: ইন্দোরে কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের ১৯ জন বন্দির শরীরে করোনা সংক্রমণ। তাঁদের সরানো হল অন্যত্র। খবর জানালেন CMOH প্রবীণ জাড়িয়া।  

দুপুর ১২.১০: করোনার থাবা সংক্রমণ নীতি আয়োগের দপ্তরে। এক আধিকারিকের শরীরে ধরা পড়ল COVID-19 জীবাণু। সঙ্গে সঙ্গে দপ্তর খালি করে স্যানিটাইজেশনের কাজ শুরু হয়েছে। আগামী ২ দিন দপ্তরের সমস্ত কাজকর্ম বন্ধ থাকবে, জানিয়েছেন নীতি আয়োগের ডেপুটি সেক্রেটারি অজিত কুমার।

দুপুর ১২: দেশের ৮০ টি জেলা থেকে গত ৭ দিনে নতুন করে সংক্রমণের খবর নেই। ৪৭ টি জেলা সংক্রমণহীন গত ১৪ দিন ধরে। তিন সপ্তাহে কেউ নতুন করে আক্রান্ত হননি ৩৯ জেলায় এবং ২৮ দিনের ১৭ টি জেলা থেকে সংক্রমণের খবর মেলেনি। দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষবর্ধনের।

বেলা ১১.৫৪: পরিস্থিতি নিয়ে দেশের নামী বায়োটেকনোলজি ইনস্টিটিউশনের অধিকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

বেলা ১১.১৫: অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরির  বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের। 

সকাল ১০.৫৫:  করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ উদ্বেগজনক। কোভিড ম্যানেজমেন্ট টিমের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যালোচনায় বসলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। 

সকাল ১০.১২: আজও করোনা পরিস্থিতি পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। সল্টলেকের আমরি অর্থাৎ COVOID হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখল একটি দল। বৃষ্টি উপেক্ষা করে শিলিগুড়িতে অপর দলটিও সকালেই বেরল পরিদর্শনে। 

সকাল ৯.৪৫: করোনা আবহেই শুরু ব্রিকস সম্মেলন। ভিডিও কনফারেন্সে তাতে যোগ দিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর।

সকাল ৯.২৬: পাঞ্জাবের তরণ তারণে উপসর্গহীন ৫ জনের শরীরে মিলল COVID-19 জীবাণু। জানাল পাঞ্জাবের স্বাস্থ্য দপ্তর। তাঁরা সকলে মহারাষ্ট্রে এক ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন বলে খবর।

সকাল ৯: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের, আক্রান্ত ১৫৪৩।  করোনায় এটাই দেশের সর্বোচ্চ মৃত্যুর হার। টুইট করে জানাল স্বাস্থ্য মন্ত্রক। বাড়ছে চিন্তা।

সকাল ৮.৫০: দুর্গাপুর, বারাসাত, বাদুরিয়া, শান্তিপুর ও ঝাড়খণ্ড থেকে আসা উওরবঙ্গের শ’খানেক শ্রমিককে ফরাক্কা ব্যারেজের মুখে আটকাল মালদহ পুলিশ। 

সকাল ৮.২৭: COVID-19’এর পরবর্তী হটস্পট হতে চলেছে ব্রাজিল। প্রশাসনের উদাসীনতার জন্যই এই পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের। এখনও পর্যন্ত সে দেশে ৪৫০০ জনের মৃ্ত্যু হলেও, কোনও নিষেধাজ্ঞাই কার্যত জারি করেননি প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, আক্রান্ত ৬৭ হাজার।

সকাল ৭.৫৫: করোনা ভাইরাসের শিকার বিশ্বের আরও ৪৯৮২জন। মৃতের সংখ্যা ২ লক্ষ ছুঁতে চলেছে। পরিসংখ্যান দিল WHO.

সকাল ৭.৪৭: দিল্লিতে বিদ্যুৎকর্মীদের কর্মস্থলে যেতে ছাড়। সোমবার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে সিদ্ধান্ত কেজরিওয়াল সরকারের। স্বাস্থ্যকর্মী, বিজ্ঞানী, পশু চিকিৎসকদেরও শর্তসাপেক্ষে কাজে যাওয়ার অনুমতি। মঙ্গলবার দিনের শুরু থেকে কড়া চেকিং দিল্লির বিভিন্ন রাস্তায়।

Delhi-Police

সকাল ৭.২০: আমেরিকায় করোনার থাবায় মৃত্যুমিছিল অব্যাহত। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা ১৩০৩। পরিসংখ্যান জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের।

সকাল ৭: সাবধানতার সঙ্গে ধীরে ধীরে সংক্রামক এলাকাগুলিকে (Containment Zones) স্বাভাবিক ছন্দ ফিরিয়ে আনুক ইউরোপ। আরজি WHO প্রধান টেডরোস আধানম ঘেব্রিয়েসুসের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement